নতুন লেখা

ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করা

ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করা

ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করা  >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৩. অধ্যায়ঃ ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করা

২১০০

শাবী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

রসূল্লাহ [সাঃআঃ] মৃতকে দাফন করার পর একটা ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করিয়াছেন এবং চার তাকবীর উচ্চারণ করিয়াছেন। শায়বানী বলেন, আমি শাবীকে জিজ্ঞেস করলাম, এটা আপনার কাছে কে বর্ণনা করিয়াছেন? তিনি বলিলেন, নির্ভরযোগ্য ব্যক্তি আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.]। এট হাসান-এর বর্ণিত হাদীসের শব্দ। আর ইবনি নুমায়র-এর বর্ণনাতে রয়েছে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] একটা তাজা ক্ববরের নিকট পৌঁছে এর উপর নামাজ আরম্ভ করলে সবাই তাহাঁর পিছনে সারিবদ্ধ হল। তিনি চার তাকবীর উচ্চারণ করিলেন। আমি আমিরকে জিজ্ঞেস করলাম, আপনার কাছে কে বর্ণনা করিয়াছেন? তিনি বলিলেন, নির্ভরযোগ্য ব্যক্তি যার কাছে ইবনি আব্বাস [রাদি.] এসেছিলেন। [ই.ফা ২০৭৯, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৩]

২১০১

আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.] নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। তাদের কারো হাদীসে এ কথা উল্লেখ নেই যে, নবী [সাঃআঃ] তার জানাযায় চার তাকবীর উচ্চারণ করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২০৮০, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৪]

২১০২

আবদুল্লাহ ইবনি আব্বাস [রাদি.] থেকে এবং তিনি নবী [সাঃআঃ] হইতে বর্ণীতঃ

ক্ববরের উপর তাহাঁর জানাযার নামাজ সম্পর্কে শায়বানীর হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। তাদের হাদীসের চার তাকবীরের কথা বর্ণিত হয়নি। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২০৮১, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৫]

২১০৩

আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] ক্ববরের উপর জানাযার নামাজ আদায় করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২০৮২, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৬]

২১০৪

আবু হুরায়রাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

একটি কৃষ্ণাঙ্গ মহিলা অথবা যুবক মাসজিদে নাবাবীতে ঝাড়ু দিত। কিছুদিন তাকে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] না দেখে তার সম্বন্ধে জিজ্ঞেস করিলেন। সাহাবীগণ বলিলেন, সে তো মারা গেছে। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তোমরা আমাকে খবর দিলে না কেন? বর্ণনাকারী বলেন, খুব সম্ভব তারা বিষয়টিকে গুরুত্বহীন মনে করেছিলেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ আমাকে তার ক্ববর দেখিয়ে দাও। তারা তাঁকে ক্ববর দেখিয়ে দিলে তিনি [সাঃআঃ] তার ক্ববরের উপর সলাতুল জানাযাহ আদায় করিলেন। অতঃপর তিনি [সাঃআঃ] বললেনঃ এসব ক্ববর অন্ধকারে পরিপূর্ণ হয়ে আছে। মহান আল্লাহ আমার নামাজের দরুন তা আলোকিত করে দিন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২০৮৩, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৭]

২১০৫

আবদুর রহমান ইবনি লায়লা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, যায়দ [রাদি.] আমাদের জানাযাহসমূহে চারটি তাকবীর উচ্চারণ করিতেন। আর তিনি কোন জানাযায় পাঁচ তাকবীরও দিয়েছেন। আমি তাঁকে জিজ্ঞেস করলে তিনি বলিলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] এরূপ [পাঁচবার] তাকবীর দিতেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২০৮৪, ইসলামিক সেন্টার- ২০৮৮]

About halalbajar.com

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Check Also

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে”

মহান আল্লাহর বাণী : “তারা দুটি বিবদমান পক্ষ তাদের প্রতিপালক সম্পর্কে বাক-বিতণ্ডা করে” মহান আল্লাহর …

Leave a Reply

%d bloggers like this: