কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না , এমনকি এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির কবরের পাশ দিয়ে

কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না , এমনকি এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির কবরের পাশ দিয়ে

কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না , এমনকি এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির কবরের পাশ দিয়ে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৮. অধ্যায়ঃ কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না , এমনকি এক ব্যক্তি অন্য ব্যক্তির কবরের পাশ দিয়ে অতিক্রম করিতে গিয়ে মুসীবাতের কারণে মৃত ব্যক্তির স্থানে হওয়ার কামনা করিবে

৭১৯৩. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না, যতক্ষণ না এক লোক অপর লোকের কবরের নিকট গিয়ে বলবে, হায়! আমি যদি তার স্থলে থাকতাম।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৩৭, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৩]

৭১৯৪. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে সত্তার হাতে আমার জীবন, আমি তাহাঁর কসম করে বলছি, দুনিয়া নিঃশেষ হইবে না যতক্ষণ না এক লোক কবরের নিকট গিয়ে সেটার উপর গড়াগড়ি করে বলবে, হায়! এ কবরবাসীর স্থলে যদি আমি হতাম। তার নিকট দ্বীন থাকিবে না; থাকিবে শুধু বিপদাপদ।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৩৮, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৪]

৭১৯৫. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ ঐ সত্তার শপথ! যাঁর হাতে আমার জীবন, মানুষের কাছে এমন এক সময় আগমন করিবে, যখন হত্যাকারী জানবে না যে, কি দোষে সে হত্যা করলো এবং নিহত লোকও জানবে না যে, কি দোষে সে নিহত হলো।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৩৯, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৫]

৭১৯৬. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ সে সত্তার শপথ! যাঁর হাতে আমার জীবন, দুনিয়া ধ্বংস হইবে না যে পর্যন্ত না মানুষের কাছে এমন এক যুগ আসে, যখন হত্যাকারী জানবে না যে, কি দোষে সে অন্যকে হত্যা করেছে এবং নিহত লোকও জানবে না যে, কি দোষে তাকে হত্যা করা হচ্ছে। জিজ্ঞেস করা হলো, কিভাবে এমন অত্যচার হইবে? তিনি জবাবে বলিলেন, সে যুগটা হইবে হত্যার যুগ। এরূপ যুগের হত্যাকারী ও নিহত ব্যক্তি উভয়েই জাহান্নামী হইবে।

বর্ণনাকারী আবান হলো, ইয়াযীদ ইবনি কাইসান। তিনি ইসমাঈল [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে এ হাদীসটি বর্ণনা করিয়াছেন। তবে তিনি ইসমাঈলের বংশ-পরিচয়মূলক [আরবী শব্দ] শব্দটি তিনি বর্ণনা করেননি।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪০, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৬]

৭১৯৭. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ আবিসিনিয়ার এক লোক কাবা ঘরকে ভেঙ্গে চূর্ণ-বিচূর্ণ করিবে; তার উভয় পায়ের নলা ছোট ছোট হইবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪১, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৭]

৭১৯৮. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আবিসিনিয়ার এক লোক কাবা ঘরকে ধ্বংস করিবে; তার উভয় পায়ের নলা ছোট ছোট হইবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪২, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৮]

৭১৯৯. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন: ছোট ছোট নলা বিশিষ্ট আবিসিনিয়ার এক লোক আল্লাহ তাআলার ঘরকে ধ্বংস করিবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৩, ইসলামিক সেন্টার-৭০৯৯]

৭২০০. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন, কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যতক্ষণ না কাহ্‌তান গোত্র হইতে এক লোকের আগমন ঘটবে, যে লোকেদেরকে লাঠি দিয়ে তাড়িয়ে নিয়ে যাবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৪, ইসলামিক সেন্টার-৭১০০]

৭২০১. আবু হুরাইরাহ [রাদি.]-এর সূত্রে নবী [সাঃ] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রাত দিন শেষ হইবে না, যতক্ষণ পর্যন্ত না জাহ্‌জাহ্‌ নামে কোন লোক শাসনকর্তা হইবে।

মুসলিম বলেন, রাবী আবদুল কাবীর তারা চার ভাই-শারীক, উবাইদুল্লাহ, উমায়র ও আবদুল কাবীর। তারা সবাই আবদুল মাজীদের সন্তান।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৫, ইসলামিক সেন্টার-৭১০১]

৭২০২. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যে পর্যন্ত না তোমরা এমন এক সম্প্রদায়ের সঙ্গে লড়াই করিবে, যাদের চেহারা হইবে চামড়া জড়ানো ঢালের মতো মাংসল। কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না, যে পর্যন্ত না তোমরা এমন এক জাতির সঙ্গে লড়াই করিবে, যাদের জুতা হইবে পশমের তৈরি।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৬, ইসলামিক সেন্টার-৭১০২]

৭২০৩. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন, কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যে পর্যন্ত না তোমরা এমন দলের সঙ্গে লড়াই করিবে যারা পশমী জুতা পরিধান করিবে। তাদের চেহারা হইবে চামড়া জড়ানো ঢালের মতো মজবুত ও চেপ্টা।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৭, ইসলামিক সেন্টার-৭১০৩]

৭২০৪. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না, যে পর্যন্ত তোমরা এমন এক সম্প্রদায়ের সঙ্গে লড়াই না করিবে, যাদের জুতা হইবে পশমের তৈরি। কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না, যে পর্যন্ত তোমরা এমন এক সম্প্রদায়ের সঙ্গে লড়াই না করিবে যাদের চক্ষু হইবে ছোট ছোট এবং নাক হইবে বাঁকা ও মোটা।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৮, ইসলামিক সেন্টার-৭১০৪]

৭২০৫. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেন, কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না, যে পর্যন্ত মুসলিম বাহিনী তুর্কীদের সঙ্গে লড়াই না করিবে। তারা এমন এক সম্প্রদায়, যাদের চেহারা হইবে চামড়া জড়ানো ঢালের মতো মাংসল। তারা পশমের তৈরি পোশাক পরিধান করিবে এবং পশমের উপর হাঁটবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৪৯, ইসলামিক সেন্টার-৭১০৫]

৭২০৬. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, কিয়ামাতের আগে তোমরা এমন এক সম্প্রদায়ের সঙ্গে লড়াই করিবে, যাদের জুতা হইবে পশমের। তাদের মুখমন্ডল চামড়া জড়ানো ঢালের মতো মাংসল এবং রক্ত বর্ণ হইবে এবং তাদের চোখ হইবে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫০, ইসলামিক সেন্টার-৭১০৬]

৭২০৭. জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, শীঘ্রই ইরাকবাসীরা না খাদ্যশস্য পাবে না দিরহাম পাবে। আমরা প্রশ্ন করলাম, কি কারণে এ বিপদ সংঘটিত হইবে? তিনি বলিলেন, অনারবদের কারণে। তারা তা [খাদ্যশস্য বা দিরহাম] দেয়া বন্ধ করে দিবে। তিনি পুনরায় বলিলেন, অচিরেই সিরিয়াবাসীদের নিকট কোন দীনার আসবে না এবং কোন খাদ্যশস্যও আসবে না। আমরা জিজ্ঞেস করলাম, এ বিপদ কোন্‌ দিক থেকে আবির্ভাব হইবে? তিনি বলিলেন, রোমের দিক থেকে। অতঃপর তিনি কিছুক্ষণ নীরব থেকে বলিলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: আমার উম্মাতের শেষভাগে একজন খলীফা হইবে, সে হাত ভরে ভরে ধন-সম্পদ দান করিবে, গুণে গুণে দিবে না।

বর্ণনাকারী বলেন, আমি আবু নাযরাহ্‌ ও আবুল আলাকে প্রশ্ন করলাম, আপনাদের ধারণায় ইনি কি খলীফা উমর ইবনি আবদুল আযীয? তারা উত্তরে বলিলেন, না।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫১, ইসলামিক সেন্টার- ৭১০৭]

৭২০৮. জুরাইরী [রহ:] হইতে এ সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫২, ইসলামিক সেন্টার- ৭১০৭{ক}]

৭২০৯. আবু সাঈদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: তোমাদের খলিফাগণের মধ্যে একজন খলীফা এমন হইবে, যে হাত ভরে ভরে দান করিবে এবং মালের কোন গণনাই করিবে না।

ইবনি হুজ্‌র [রহ:]-এর রিওয়ায়াতে [–] এর স্থলে [–] বর্ণিত আছে [অর্থ একই]।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৩, ইসলামিক সেন্টার- ৭১০৮]

৭২১০. আবু সাঈদ ও জাবির ইবনি আবদুল্লাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তারা বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: আখিরী যুগে এমন খলীফার আগমন ঘটবে, সে ধন-সম্পদ ভাগ করিবে কিন্তু কোন প্রকার গণনা করিবে না।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৪, ইসলামিক সেন্টার- ৭১০৯]

৭২১১. আবু সাঈদ আল খুদরী [রাদি.]-এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] হইতে অবিকল বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৫, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১০]

৭২১২. আবু সাঈদ আল খুদ্‌রী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমার থেকে সেরা লোক আমাকে জানিয়েছেন যে, আম্মার [রাদি.] যখন পরিখা খনন করছিলেন তখন রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাহাঁর মাথায় হাত রেখে তাঁকে লক্ষ্য করে বলেছেন, ইবনি সুমাইয়্যার জন্য দুঃখ হয়। একটি বিদ্রোহী দল তোমাকে হত্যা করিবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৬, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১১]

৭২১৩. আবু মাসলামাহ্ [রহ:] থেকে এ সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে নায্র-এর হাদীসের মধ্যে আছে যে, [–] অর্থাৎ আমার চেয়ে উত্তম ব্যক্তি আবু কাতাদাহ্ আমাকে জানিয়েছেন এবং খালিদ ইবনিল হারিস-এর হাদীসের মধ্যে আছে, [–]। অর্থাৎ- সে লোকটি হলো, আবু কাতাদাহ্ [রাদি.]। খালিদের হাদীসের মধ্যে [–]–এর পরিবর্তে [–] বা [–] উল্লেখ রয়েছে। অর্থাৎ ইবনি সুমাইয়্যাহ্ তোমার জন্য দুঃখ ও দারিদ্রতা অপেক্ষা করছে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৭, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১২]

৭২১৪. উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সা] আম্মার [রাদি.]-কে উদ্দেশ্য করে বলেছেন, তোমাকে বিদ্রোহী দল হত্যা করিবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৮, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৩]

৭২১৫. উম্মু সালামাহ্ [রাদি.]-এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] হইতে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৫৯, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৪]

৭২১৬. উম্মু সালামাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আম্মারকে বিদ্রোহী দল হত্যা করিবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬০, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৫]

৭২১৭. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেছেন, কুরায়শের এ সম্প্রদায়টি আমার উম্মাতকে ধ্বংস করিবে। এ কথা শুনে সহাবাগণ জিজ্ঞেস করিলেন, আপনি আমাদেরকে কি আদেশ করবেন? উত্তরে তিনি বলিলেন, লোকেরা যদি তাদের থেকে পৃথক হয়ে যেত।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬১, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৬]

আহ্‌মাদ ইবনি ইব্‌রাহীম আদ্‌ দাওরাকী [রহ:] ….. শুবাহ্‌ [রহ:] হইতে এ সূত্রে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬২, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৭]

৭২১৮. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ কিসরা [পারস্য রাজ] মারা গেছে। অতঃপর পারস্য রাজ আর হইবে না। আর যখন রোম সম্রাট ধ্বংস হইবে তারপর আর কোন রোম সম্রাট হইবে না। কসম ঐ প্রতিপালকের, যাঁর হাতে আমার জীবন, অবশ্যই তাদের ধন-সম্পদ আল্লাহ্‌র পথে বিলিয়ে দেয়া হইবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৩, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৮]

হারমালাহ্‌ ইবনি ইয়াহ্‌ইয়া অপর সূত্রে ইবনি রাফি ও আব্‌দ ইবনি হুমায়দ [রহ:] ….. যুহরী [রহ:] হইতে সুফ্‌ইয়ান [রহ:]-এর সানাদে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৪, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৯]

৭২১৯. আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.]-এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] থেকে কতিপয় হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তার মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য হাদীস হচ্ছে এই যে, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ পারস্য রাজ মারা গেছে, তারপর আর কেউ পারস্য রাজ হইবে না। রোম সম্রাট অবশ্যই ধ্বংস হয়ে যাবে। অতঃপর আর কোন রোম সম্রাট হইবে না। তাদের ধনভাণ্ডার আল্লাহ্‌র পথে বণ্টন করে দেয়া হইবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৫, ইসলামিক সেন্টার- ৭১১৯]

৭২২০. জাবির ইবনি সামুরাহ্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন: পারস্য রাজ ধ্বংস হয়ে যাবে। তারপর আর কোন পারস্য রাজ হইবে না। অতঃপর জাবির [রাদি.] আবু হুরায়রা্‌ [রাদি.]-এর অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৬, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২০]

৭২২১. জাবির ইবনি সামুরাহ্ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]-কে বলিতে শুনেছি, অবশ্যই মুসলিম অথবা মুমিনদের একটি দল যা আব্‌ইয়ায নামক বালাখানায় সংরক্ষিত পারস্য রাজ্যের ধনভাণ্ডার অধিকার করিবে।

বর্ণনাকারী কুতাইবাহ্‌ দ্বিধাহীনভাবে মুসলিমদের কথা উল্লেখ করিয়াছেন এবং কোন প্রকার সন্দেহ করেননি।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৭, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২১]

৭২২২. সিমাক ইবনি হার্‌ব [রহ:] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি জাবির ইবনি সামুরাহ্‌ [রাদি.] হইতে শুনেছি, তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] হইতে শুনেছি আবু আওয়ানাহ্‌ [রহ:]-এর হাদীসের অবিকল।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৮, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২২]

৭২২৩. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেছেনঃ তোমরা কি ঐ শহরের কথা শুনেছ, যার একদিকে স্থলভাগ এবং একদিকে জলভাগ? উত্তরে সহাবাগণ বলিলেন, হ্যাঁ, হে আল্লাহ্‌র রসূল [সাঃআঃ]! শুনেছি। অতঃপর তিনি বলিলেন, কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যতক্ষণ পর্যন্ত ইসহাক্‌ [আঃ]-এর সন্তানদের সত্তর হাজার লোক এ শহরের লোকদের সঙ্গে লড়াই না করিবে। তারা শহরের দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছাবে কোন অস্ত্র দ্বারা যুদ্ধ করিবে না এবং কোন তীরও চালাবে না; বরং তারা একবার

لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ وَاللَّهُ أَكْبَرُ

লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ ওয়াল্ল-হু আকবার

বলবে, সাথে সাথে এর এক প্রান্ত ধ্বসে যাবে।

বর্ণনাকারী সাওর [রহ:] বলেন, আমার যতদূর মনে পড়ে, আমার নিকট বর্ণনাকারী লোক সমুদ্রস্থিত প্রান্তের কথা বলেছিলেন। অতঃপর দ্বিতীয়বার তারা

لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ وَاللَّهُ أَكْبَرُ

লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ ও ওয়াল্ল-হু আকবার

বলবে। এতে শহরের অপর প্রান্ত ধ্বসে যাবে। এরপর তারা তৃতীয়বার

لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ وَاللَّهُ أَكْبَرُ

লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ ও ওয়াল্ল-হু আকবার

বলবে। তখন তাদের শহরের দ্বার খুলে দেয়া হইবে। তারা যখন তাতে প্রবেশ করে গনীমাতের মাল ভাগাভাগিতে ব্যতিব্যস্ত থাকিবে, তখন কেউ উচ্চৈ:স্বরে বলে উঠবে, দাজ্জালের আগমন ঘটেছে। এ কথা শুনা মাত্রই তারা ধন-সম্পদ ফেলে দেশে ফিরে যাবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৬৯, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৩]

৭২২৪. সাওর ইবনি যায়দ আদ্ দীলী [রহ:] হইতে বর্ণীতঃ

এ সূত্রে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭০, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৪]

৭২২৫. ইবনি উমর [রাদি.]-এর সূত্রে নবী [সা:] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, অবশ্যই ইয়াহূদীরা তোমাদের সঙ্গে লড়াই করিবে এবং তোমরা তাদেরকে হত্যা করিবে। পরিশেষে পাথর [সন্ধান দিয়ে] বলবে, হে মুসলিম! এ-ই যে ইয়াহূদী। এসো, তুমি তাকে হত্যা কর।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭১, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৫]

৭২২৬. মুহাম্মাদ ইবনিল মুসান্না ও উবাইদুল্লাহ ইবনি সাঈদ [রহ:] উক্ত সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে এতে [–] রয়েছে অর্থাৎ-এই আমার পিছনে ইয়াহূদী লুকিয়ে আছে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭২, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৬]

৭২২৭. আব্দুল্লাহ ইবনি উমর হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ তোমরা এবং ইয়াহুদী সম্প্রদায় পরস্পর যুদ্ধে লিপ্ত হইবে। অবশেষে পাথর বলবে, হে মুসলিম! এই যে আমার পিছনে ইয়াহূদী লুকিয়ে আছে, এসো তুমি তাকে হত্যা কর।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৩, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৭]

৭২২৮. আব্দুল্লাহ ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ ইয়াহূদী সম্প্রদায় তোমাদের সঙ্গে লড়াইয়ে লিপ্ত হইবে। তারপর তোমরা তাদের উপর জয়ী হইবে। এমনকি পাথর বলে উঠবে, হে মুসলিম!এই তো ইয়াহূদী আমার পিছনে আছে, তুমি তাকে হত্যা কর।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৪, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৮]

৭২২৯. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেনঃ ততক্ষণ পর্যন্ত কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যতক্ষণ পর্যন্ত মুসলিমদের সঙ্গে ইয়াহূদী সম্প্রদায়ের যুদ্ধ না হইবে।মুসলিমগণ তাদেরকে হত্যা করিবে। ফলে তারা পাথর বা গাছের পিছনে লুকিয়ে থাকিবে। তখন পাথর বা গাছ বলবে,  হে মুসলিম! হে আল্লাহর বান্দা! এই তো ইয়াহূদী আমার পিছনে লুকিয়ে আছে। এসো, তাকে হত্যা কর। কিন্তু গারকাদ নামক গাছ দেখিয়ে দিবে না। কারণ এটা হচ্ছে ইয়াহূদীদের সহায়তাকারী গাছ।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৫, ইসলামিক সেন্টার- ৭১২৯]

৭২৩০. জাবির ইবনি সামুরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] –কে এ উক্তি করিতে শুনেছি, কিয়ামাতের আগে কতক মিথ্যাবাদ ব্যক্তির আগমন ঘটবে।

তবে আবুল আহ্‌ওয়াস-এর বর্ণনায় এ কথা বর্ধিত বর্ণিত রয়েছে যে, আমি জাবির [রাদি.]- কে প্রশ্ন করলাম, আপনি কি রসূলুল্লাহ [সা] থেকে এ কথা শুনেছেন? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ, শুনেছি।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৬, ইসলামিক সেন্টার- ৭১৩০]

৭২৩১. সিমাক [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে এ সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

অবিকল বর্ণনা করিয়াছেন। সিমাক [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]বলেন, আমি আমার ভাইকে বলিতে শুনেছি।

তিনি বলেন, জাবির [রাদি.]বলেছেন, তোমরা তাদের থেকে সতর্ক থাকিবে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৭, ইসলামিক সেন্টার- ৭১৩১]

৭২৩২. আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] বলেনঃ ততক্ষণ পর্যন্ত কিয়ামাত সংঘটিত হইবে না যতক্ষণ না প্রায় ত্রিশজন মিথ্যাবাদী দাজ্জালের আগমন হয়। আগমনের পর তারা প্রত্যেকেই দাবী করিবে, সে আল্লাহর রসূল।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৮, ইসলামিক সেন্টার- ৭১৩২]

৭২৩৩. আবু হুরাইরাহ্ [রাদি.]-এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] হইতে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে এতে [আর-বি] এর স্থলে [আরবি] বর্ণিত রয়েছে।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭০৭৯, ইসলামিক সেন্টার- ৭১৩৩

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply