কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা বিষয়ক হাদীস

কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা

কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা , এই অধ্যায়ে হাদীস ৮ টি ( ১৮০-১৮৭ পর্যন্ত ) << শামায়েলে তিরমিযী হাদীসের মুল সুচিপত্র দেখুন

অধ্যায়-৩৭ঃ কাব্যিক ছন্দে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) এর কথা

১।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) ইবনি রাওয়াহার কবিতা আবৃত্তি করিতেন
২।পরিচ্ছদঃ একবার আঙ্গুল রক্তাক্ত হয়ে গেলে এ কবিতা পাঠ করেছিলেন
৩।পরিচ্ছদঃ রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) হাওয়াযিন গোত্রের সাথে যুদ্ধের সময় কবিতা আবৃত্তি করেছিলেন
৪।পরিচ্ছদঃ ইবনি রাওয়াহা [রাদি.] নাবী (সাঃআঃ) এর সামনে কবিতা আবৃত্তি করিতেন
৫।পরিচ্ছদঃ রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর কাছে শ্রেষ্ঠতম উদ্ধৃতি
৬।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) অমুসলিম কবির কবিতাও শ্রবণ করিতেন
৭।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) কবিতা আবৃত্তি করার উদ্দেশ্যে হাসসান [রাদি.]{১} এর জন্য মসজিদে একটি মিম্বার তৈরি করেছিলেন

১।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) ইবনি রাওয়াহার কবিতা আবৃত্তি করিতেন

১৮০. আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী (সাঃআঃ) কাব্যের ছন্দে কথাবার্তা বলেন কিনা সে ব্যাপারে তাকে একবার জিজ্ঞেস করা হলো। তিনি বলিলেন, নাবী (সাঃআঃ) ইবনি রাওয়াহার কবিতা আবৃত্তি করিতেন। আবার কখনো বলিতেন- يَأْتِيكَ بِالأَخْبَارِ مَنْ لَمْ تُزَوَّدِ

অর্থাৎ তোমার কাছে এমন ব্যক্তি সুসংবাদ নিয়ে আসেন, যাকে তুমি মজুরী দাও না।{১}

{১} সুনানুল কুবরা লিন নাসাঈ, হাদিস নং/১০৭৬৯; আদাবুল মুফরাদ, হাদিস নং/৮৬৭; বায়হাকী, হাদিস নং/২০৯০৩। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

২।পরিচ্ছদঃ একবার আঙ্গুল রক্তাক্ত হয়ে গেলে এ কবিতা পাঠ করেছিলেন

১৮১. জুনদুব ইবনি সুফিয়ান আল বাজালী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, [একদা] প্রস্তারাঘাতে রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর একটি আঙ্গুল রক্তাক্ত হয়ে যায়। তখন তিনি বলেন, هَلْ أَنْتِ إِلا أُصْبُعٌ دَمِيتِ وَفِي سَبِيلِ اللَّهِ مَا لَقِيتِ

অর্থাৎ তুমি একটি আঙ্গুল যার রক্ত প্রবাহিত হয়েছে, তাও আল্লাহর রাস্তায়, যার প্রতিদান পাবে।{১}

{১} সহিহ বোখারী, হ/৬১৪৬; সহিহ মুসলিম, হাদিস নং/৪৭৫০; মুসনাদে আহমদ, হ১৮৮১৯ জমেউস সগীর, হাদিস নং/১২৯৭৯। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৩।পরিচ্ছদঃ রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) হাওয়াযিন গোত্রের সাথে যুদ্ধের সময় কবিতা আবৃত্তি করেছিলেন

১৮২. বারা ইবনি আযিব [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

এক ব্যক্তি তাঁকে জিজ্ঞেস করিল, আপনারা কি নাবী (সাঃআঃ) কে রণক্ষেত্রে রেখে পালিয়ে গিয়েছিলেন? উত্তরে তিনি বলিলেন, না- নাবী (সাঃআঃ) কখনো পালিয়ে যাননি। বরং দলের কিছুসংখ্যক তাড়াহুড়াপ্রবণ লোক হাওয়াযিনের তীরের আঘাতে টিকতে না পেরে পিছু হটে এসেছিল। [বেশিরভাগ ছিল বনু সুলায়ম-এর লোক এবং মক্কার নও মুসলিম] তখন নাবী (সাঃআঃ) স্বীয় খচ্চরের উপর আরোহী ছিলেন। আর লাগাম ছিল আবু সুফইয়ানের হাতে। তখন নাবী (সাঃআঃ) আবৃত্তি করছিলেন-

অর্থাৎ আমি মিথ্যা নাবী নই, আমি আবদুল মুত্ত্বালিবের [বীর] সন্তান।{১}

{১} সহিহ বোখারী, হাদিস নং/২৮৭৪; সহিহ মুসলিম, হাদিস নং/৪৭১৫; সহিহ ইবনি হিব্বান, হাদিস নং/৪৭৭০; জামেউস সগীর, হাদিস নং/২৩৩১। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৪।পরিচ্ছদঃ ইবনি রাওয়াহা [রাদি.] নাবী (সাঃআঃ) এর সামনে কবিতা আবৃত্তি করিতেন

১৮৩. আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নাবী (সাঃআঃ) যখন উমরাতুল কাযা পালনের উদ্দেশ্যে মক্কায় প্রবেশ করেন তখন ইবনি রাওয়াহা [রাদি.] তাহাঁর সামনে চলছেন এবং বলছেনঃ

অর্থাৎ হে কাফির সন্তানরা! তাহাঁর চলার পথ ছেড়ে দাও। আজ তাঁকে বাধা দিলে তোমাদেরকে এমন শায়েস্তা করব যে, কাঁধ থেকে মস্তক বিচ্ছিন্ন হয়ে যাবে এবং বন্ধুর কথা ভুলে যাবে।

উমার [রাদি.] তাকে বলিলেন, ইবনি রওয়াহা! আল্লাহর হারামে এবং রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর সম্মুখে কবিতা আবৃত্তি করছ? নাবী (সাঃআঃ) বলিলেন, উমার! তাকে বলিতে দাও। কারণ, তার কবিতা ওদের জন্য তীরের আঘাতের চেয়েও অধিক কার্যকর।{১}

{১} সুনানে নাসাঈ, হাদিস নং/২৮৭৩; শারহুস সুন্নাহ, হাদিস নং/৩৪০৪। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৮৪. জাবির ইবনি সামুরা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর মজলিসে শতাধিক বার বসেছি। আর তাতে তাহাঁর সাহাবীগণ কবিতা আবৃত্তি করিতেন এবং জাহেলি যুগের বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে আলোচনা করিতেন। আর তিনি কখনো চুপ থাকতেন। আবার কখনো তাহাদের সাথে মুচকি হাসতেন।{১}

{১} ইবনি হিব্বান, হাদিস নং/৫৭৮১। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৫।পরিচ্ছদঃ রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর কাছে শ্রেষ্ঠতম উদ্ধৃতি

১৮৫. আবু হুরায়রা [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেছেন, আরব কবিদের মধ্যে শ্রেষ্ঠতম বাণী হচ্ছে লাবীদের এই চরণঃ أَلا كُلُّ شَيْءٍ مَا خَلا اللَّهَ بَاطِلٌ অর্থাৎ সাবধান আল্লাহ ছাড়া সব কিছুই ধ্বংসশীল।{১}

কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৬।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) অমুসলিম কবির কবিতাও শ্রবণ করিতেন

১৮৬. আমর ইবনি শারদ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, একবার আমি বাহনে রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর পেছনে বসা ছিলাম। তারপর আমি তাঁকে উমাইয়্যা ইবনি আবু-সালত বিরচিত একশ চরণ বিশিষ্ট একটি কবিতা আবৃত্তি করে শোনালাম। কবিতা শেষ হলে তিনি আমাকে বলিলেন, আরো শোনাও। এরপর তিনি বলিলেন, সে ইসলাম গ্রহণের কাছাকাছি এসে গেছে।{১}

{১} সুনানে কুবরা লিল বায়হাকী, হাদিস নং/২১৫৬০; সহিহ মুসলিম, হাদিস নং/৬০২২। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৭।পরিচ্ছদঃ নাবী (সাঃআঃ) কবিতা আবৃত্তি করার উদ্দেশ্যে হাসসান [রাদি.]{১} এর জন্য মসজিদে একটি মিম্বার তৈরি করেছিলেন

১৮৭. আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) হাসসান ইবেন সাবিত [রাদি.] এর জন্য মসজিদে একটি মিম্বার স্থাপন করেছিলেন যেন তিনি রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর প্রশংসার কবিতা পাঠ করেন অথবা তিনি বলেছেন, যেন তিনি রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর পক্ষ হতে কাফিরদের নিন্দাবাদের উত্তর দেন। রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) বলেন, নিশ্চয় আল্লাহ! রূহুল কুদস {জিবরীল [আঃ]} দ্বারা হাসসানকে সাহায্য করেন যতক্ষণ সে রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) এর প্রশংসা করিবে কিংবা কাফিরদের নিন্দার উত্তর দেবে।{2}

{১} হাসসান ইবনি সাবিত [রাদি.] ছিলেন বিখ্যাত একজিন সাহাবী কবি। তাহাঁর উপাধি ছিল شاعر النبي তথা নাবী [সাঃ] এর কবি। {2} আবু দাউদ, হাদিস নং/৫০১৭; মুস্তাদরাকে হাকিম, হাদিস নং/৬০৫৮; মুজামুল কাবীর লিত তাবারানী, হাদিস নং/৩৫০১; শারহুস সুন্নাহ, হাদিস নং/৩৪০৮; সিলসিলাহ সহিহাহ, হাদিস নং/১৬৫৭। কাব্যিক ছন্দে রসূলুল্লাহ [সাঃ] এর কথা  হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

By ইমাম তিরমিজি

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply