ঔষধি গাছ -সোনামুখী মেহেদি আঙ্গুর ইত্যাদির মাধ্যমে চিকিৎসা

ঔষধি গাছ

ঔষধি গাছ এর বিষয়ে ইবনু মাজাহ + সুনান আবু দাউদ + সুনান আত তিরমিজি

আরও পরতে পারেন আপনারা

চন্দন কাঠ এর মাধ্যমে ফুসফুস ও অন্যোন্য রোগের চিকিৎসাকালোজিরা এর মাধ্যমে সরাসরি হাদিসের আলোকে কিভাবে চিকিতসা করতে হয়? এবং মধুর উপকারিতা। মধু দিয়ে কোরআন ও হাদিসের আলাকে চিকিতসা পদ্ধতি

সুনান আত তিরমিজি

হাদিসঃ সুনান আত তিরমিজি -২০৩৬ঃ কাতাদা ইবনুন নু’মান (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

রাসূলুল্লাহ্ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ আল্লাহ্ তা’আলা যখন কোন বান্দাহকে ভালবাসেন তাকে দুনিয়া হইতে বাঁচিয়ে রাখেন, যেমন তোমাদের কেউ তার রোগীকে পানি হইতে বাঁচিয়ে রাখে।

সহীহ, মিশকাত তাহকীক ছানী । আবু ঈসা বলেন, সুহাইব এবং উম্মুল মুনয়ির (রাদিআল্লাহু আঃ) হইতেও এ অনুচ্ছেদে হাদিস বর্ণিত আছে। এ হাদিসটি হাসান গারীব। এ হাদিসটি মুরসালরূপেও মাহমূদ ইবনু লাবীদের সূত্রে রাসূলুল্লাহ্ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) হইতে বর্নিত হয়েছে। আলী ইবনু হুজর-ইসমাঈল ইবনু জা’ফর হইতে, তিনি আমর ইবনু আবী আমর হইতে, তিনি আসিম ইবনু উমার ইবনি কাতাদা হইতে, তিনি মাহমূদ ইবনু লাবীদ (রাদিআল্লাহু আঃ) হইতে, তিনি রাসূলুল্লাহ্ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) হইতে (উপরের হাদিসের) অনুরূপ বর্ণনা করিয়াছেন। এই সূত্রে কাতাদার উল্লেখ নেই। আবূ ঈসা বলেন, কাতাদা (রাদিআল্লাহু আঃ) আবূ সাঈদ আল-খুদরীর বৈপিত্রেয় ভাই। মাহমূদ ইবনু লাবীদ (রাদিআল্লাহু আঃ) রাসূলুল্লাহ্ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) এর সাক্ষাৎ পেয়েছেন। তিনি তখন ছোট বালক ছিলেন। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আত তিরমিজি -২০৩৮ঃ উসামা ইবনু শারীক (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, মফস্বলের লোকেরা বলিল, হে আল্লাহর রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)! আমরা কি (রোগীর) চিকিৎসা করব না? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ, হে আল্লাহর বান্দাগণ! তোমরা চিকিৎসা কর। আল্লাহ তাআলা এমন কোন রোগ সৃষ্টি করেননি যার ঔষধ বা নিরাময়ের ব্যবস্থা রাখেননি (রোগও দিয়েছেন রোগ সারাবার ব্যবস্থাও করিয়াছেন)। কিন্তু একটি রোগের কোন নিরাময় নেই। সাহাবীগণ বললেনঃ হে আল্লাহর রাসূল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ! সে রোগটি কি? তিনি বললেনঃ বার্ধক্য।

সহীহ্, ইবনু মা-জাহ । আবূ ঈসা বলেন, ইবনু মাসঊদ, আূ হুরাইরা, আবূ খুযামা তার পিতার সূত্রে ও ইবনু আব্বাস (রাদিআল্লাহু আঃ) হইতেও এ অনুচ্ছেদে হাদিস বর্ণিত আছে। এ হাদিসটি হাসান সহীহ্। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আত তিরমিজি -২০৪৭ ঃ ইবনু আব্বাস (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ যে সব ঔষধ তোমরা ব্যবহার কর তার মধ্যে উত্তম ঔষধ হচ্ছে নস্য, মুখ দিয়ে সেবন করার ঔষধ, রক্তমোক্ষণ ও জোলাপ (বিরেচক ঔষধ)। রাসূল্লাল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) অসুস্থ হলে সাহাবীগণ তাঁকে মুখ দিয়ে ঔষধ সেবন করান। তারা অবসর হলে তিনি বলেনঃ এদের সবাইকে লাদু (মুখ দিয়ে সেব্য ঔষধ) সেবন করাও। রাবী বলেন, আব্বাস (রাদিআল্লাহু আঃ) ব্যতীত সবাইকে লাদু সেবন করানো হয়।

যঈফ, মিশকাত, তাহকীক ছানী । ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ দুর্বল হাদিস

হাদিসঃ সুনান আত তিরমিজি -২০৪৮ঃ ইবনু আব্বাস (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেনঃ রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেনঃ তোমরা যেসব ঔষধ ব্যবহার কর তার মধ্যে উত্তম ঔষধ হচ্ছে, লাদুদ, নস্য, রক্তমোক্ষণ ও জোলাপ। তোমরা যে সুরমা ব্যবহার কর তার মধ্যে উত্তম হচ্ছে ইসমিদ নামক সুরমা। কেননা এটা চোখের জ্যোতি বৃদ্ধি করে এবং চোখের পাতার পশম গজায়। রাবী বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর একটি সুরমাদানী ছিল। তিনি ঘুমানোর পূর্বে তা থেকে উভয় চোখে তিনবার করে সুরমা লাগাতেন।

যঈফ, “ইসমিদ সুরমা লাগানো” অংশটুকু সহীহ। ইবনু মাজাহ (৩৪৯৫, ৩৪৯৭, ৩৪৯৯), আবূ ঈসা বলেন, এ হাদিসটি হাসান গারীব। এটি আব্বাস ইবনু মানসূর (রহঃ) বর্ণিত হাদিস। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ দুর্বল হাদিস

সুনান আবু দাউদ

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ – ৩৮৫৫ঃ উসামাহ ইবনু শরীক (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) -এর নিকট এসে দেখলাম তাহাঁর সাহাবীদের মাথার উপর যেন পাখী বসে আছে, অর্থাৎ শান্ত পরিবেশ বিরাজ করছে। আমি সালাম দিয়ে বসলাম। অতঃপর এদিক-সেদিক হইতে কিছু বেদুঈন এসে বললো, হে আল্লাহর রাসূল! আমরা কি চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ করবো? তিনি বলেন, তোমরা চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ করো; কেননা মহান আল্লাহ একমাত্র বার্ধক্য ছাড়া সকল রোগেরই ঔষধ সৃষ্টি করিয়াছেন।

ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ – ৩৮৫৬ঃ উম্মুল মুনযির বিনতু ক্বায়িস আল-আনসারিয়্যাহ (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, একদা রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আলী (রাদিআল্লাহু আঃ)-কে সঙ্গে নিয়ে আমার নিকট এলেন। আলী সুস্থ হয়ে উঠেছেন মাত্র কিন্তু দুর্বলতা এখনো কাটেনি। আমাদের ঘরে খেজুর গুচ্ছ লটকানো ছিল। রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তা খেতে শুরু করিলেন। আলীও খেতে উঠলেন। রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) আলীকে বললেনঃ তুমি এগুলো খেয়ো না; কারণ তুমি এখনো দুর্বল। আলী (রাদিআল্লাহু আঃ) বিরত থাকলেন। বর্ণনাকারীনী বলেন, আমি যব ও বীট চিনি দিয়ে খাদ্য তৈরি করে তাহাঁর জন্য আনলাম। রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বললেনঃ হে আলী! এটা খাও, এটা তোমার জন্য উপকারী।

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ – ৩৮৬৭ঃ ইবনু আব্বাস (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) নাকে ঔষধ ব্যবহার করিয়াছেন।

হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৭০ঃ আবূ হুরাইরাহ (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) নাপাক ঔষধ ব্যবহার করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৭১ঃ  আবদুর রহমান ইবনু উসমান (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

একদা এক ডাক্তার নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে ব্যাঙ দিয়ে ঔষধ তৈরী সম্পর্কে প্রশ্ন করলে নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) তাকে ব্যাঙ হত্যা করিতে নিষেধ করিলেন।

ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৭৩ঃ আলকামা ইবনু ওয়ায়েল (রহঃ) হইতে তার পিতার সূত্র হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, তারিক ইবনু সুওয়াইদ বা সুওয়াইদ ইবনু তারিক (রাদিআল্লাহু আঃ) নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে মদ ব্যবহার সম্পর্কে প্রশ্ন করলে তিনি তাকে নিষেধ করিলেন। তিনি পুনরায় প্রশ্ন করলে তিনি তাকে নিষেধ করিলেন। তিনি বলিলেন, হে আল্লাহর নাবী। এটা তো ঔষধ। নবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেনঃ “না, বরং এটা ব্যাধি।

হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৭৪ঃ আবূ দারদা (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) বলেছেন। নিশ্চয়ই আল্লাহ্‌ রোগ এবং ঔষধ অবতীর্ণ করিয়াছেন এবং প্রতিটি রোগের ঔষধ সৃষ্টি করিয়াছেন সুতরাং তোমরা ঔষধ গ্রহণ করো; তবে হারাম ঔষধ নয়।

দুর্বলঃ গায়াতুল মারাম(৬৬), মিশকাত(৪৫৩৭)। (৩৮৭৪) বায়হাক্বী। সানাদে ইসমাঈল ইবনু আইয়াস তার শহরের লোকদের সূত্র বর্ণনায় সত্যবাদী কিন্ত অন্যদের সূত্রে বর্ণনায় সংমিশ্রণকারী। হাদিস এর মানঃ দুর্বল হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৮১ঃ আস্‌মা বিনতু ইয়াযীদ (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) কে বলিতে শুনেছিঃ তোমরা গোপনে নিজেদের সন্তানদের হত্যা করিবে না। কারণ গর্ভাবস্থায় শিশুকে দুধপান করানোর মেয়াদে সহবাস করলে আরোহীকে ঘোড়া তার পিঠ হইতে ভুলুন্ঠিত করে।

দুর্বলঃ গায়াতুল মারাম(২৪২) । (৩৮৮১) ইবনু মাজাহ, আহমাদ, ইবনু হিব্বান। সানাদের মুহাজির ইবনু আবূ মুসলিম সম্পর্কে হাফিয আত-তাক্বরীব গ্রন্থে বলেনঃ মাক্ববুল, অর্থাৎ মুতাবা’আতের ক্ষেত্রে। কিন্তু কেউ তার মুতাবা’আত করেননি। যা জাহালাতের একটি স্তর। আর ইবনু হিব্বান ছাড়া কেউ তাকে সিক্বাহ বলেননি। সুতরাং সানাদটি দুর্বল। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ দুর্বল হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৮৮২ঃ নাবী (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর স্ত্রী আয়িশাহ (রাদিআল্লাহু আঃ) জুদামাহ আল-আসদিয়া (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে বলিতে শুনেছেনঃ আমি ভেবেছিলাম যে, শিশুকে দুধ পান করানোর মেয়াদে স্ত্রীর সাথে সহবাস করিতে নিষেধ করবো। কিন্ত আমাকে জানানো হয়েছে, রোম ও পারস্যবাসীরা এরূপ করে থাকে, অথচ এতে তাহাদের সন্তানদের কোন ক্ষতি হয় না।

হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনান আবু দাউদ -৩৯০৩ঃ আয়িশাহ (রাদিআল্লাহু আঃ) হতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমার মায়ের ইচ্ছা ছিল আমাকে স্বাস্থ্যবতী বানিয়ে রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর নিকট পাঠাবেন। এজন্য তিনি অনেক ব্যবস্থা গ্রহণ করেন, কিন্তু কোন ফল হয়নি। শেষে তিনি আমাকে পাকা খেজুরের সাথে শসা বা খিরা খাওয়াতে থাকলে আমি তাতে উত্তমরূপে স্বাস্থ্যের অধিকারী হই।

হাদিসঃ ইবনু মাজাহ -৩৪৫৭ঃ আবূ উবায় (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-এর সাথে উভয় কিবলার (বাইতুল মুকাদ্দাস ও কা’বা) দিকে নামায পড়েছেন। তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম)-কে বলিতে শুনেছিঃ অবশ্যই তোমাদের সানা ও সান্নুত ব্যবহার করা উচিত। কারণ তাতে সাম ছাড়া সব রোগের প্রতিষেধক রহিয়াছে। জিজ্ঞাসা করা হলো, ইয়া রাসূলাল্লাহ! সাম’ কি? তিনি বলেনঃ মৃত্যু’। রাবী আমর (রাদিআল্লাহু আঃ) বলেন, বিন আবূ আবলা বলেছেন, সান্নুত হলো এক ধরনের উদ্ভিজ্জ, অন্যরা বলেন, বরং তা ঘি রাখার চামড়ার পাত্রে রক্ষিত মধু। যেমন কবি বলেনঃ “তারা পরস্পর মিলেমিশে ঐক্যবদ্ধ থাকে ঘি ও সান্নুতের মত, তাই তাহাদের মধ্যে নাই কোন বিবাদ। তারা প্রতিবেশীকে ধোঁকার আশ্রয় নিতে বারণ করে”।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ সহীহ। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

ইবনু মাজাহ

হাদিসঃ ইবনু মাজাহ -৩৪৫৯ঃ আবূ হুরায়রাহ (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম) নিকৃষ্ট ও অনিষ্টকর ঔষধ অর্থাৎ বিষ ব্যবহার করিতে নিষেধ করিয়াছেন।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ সহীহ। হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনানু ইবনু মাজাহ – ৩৪৬১ঃ আসমা’ বিনতু উমায়স (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) আমাকে জিজ্ঞেস করলেনঃ তুমি কিসের জোলাব নাও? আমি বললাম, শুবরুম (ছোলা সদৃশ এক প্রকার দানা) দিয়ে। তিনি বলেনঃ তা তো খুব গরম ঔষধ। অতঃপর আমি সোনামুখী গাছের পাতা দ্বারা জোলাপ নিলাম। তখন তিনি বলেনঃ কোন ঔষধ যদি মৃত্য থেকে নিরাময় দিতে পারতো তবে তা হত সোনামখী গাছ। সোনামুখী যেন মৃত্যু থেকে নিরাময় দানকারী।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ দুর্বল।

হাদিসঃ সুনানু ইবনু মাজাহ – ৩৪৬৩ঃ আনাস বিন মালিক (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

আমি রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ)-কে বলিতে শুনেছিঃ পাছার বাতরোগের চিকিৎসায় দুম্বার নিতম্ব গলিয়ে নিয়ে তা তিন ভাগ করিতে হইবে, অতঃপর প্রতিদিন এক ভাগ পান করিতে হইবে।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ সহীহ। হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনানু ইবনু মাজাহ – ৩৪৬৬ঃ আবদুল্লাহ বিন আমর ইবনুল আস (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) বলেছেন, কোন ব্যক্তি চিকিৎসা বিদ্যা অর্জন না করেই চিকিৎসা করলে সে দায়ী হইবে।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ হাসান। (৩৪৬৬) নাসায়ী ৪৮৩০, আবূ দাউদ ৪৫৮৬। সহীহাহ ৬৩৫। ঔষধি গাছ হাদিস এর মানঃ হাসান হাদিস

হাদিসঃ সুনানু ইবনু মাজাহ – ৩৫০০ঃ তারিক বিন সুওয়াদ আল-হাদরামী (রাদিআল্লাহু আঃ), হতে বর্ণিতঃ

আমি বললাম, ইয়া রসূলুল্লাহ! আমাদের এলাকায় প্রচুর আঙ্গুর হয়, আমরা তার রস নিংড়িয়ে পান করি। তিনি বলেনঃ না (পান করো না)। আমি পুনরায় বললাম, আমরা রোগীর ঔষধরুপে তা ব্যবহার করি। তিনি বলেনঃ তা ঔষধ নয়, বরং রোগ।

তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ সহীহ। হাদিস এর মানঃ সহিহ হাদিস

হাদিসঃ সুনানু ইবনু মাজাহ – ৩৫০২ ঃ রসূলুল্লাহ (সাঃআঃ)-এর মুক্তদাসী সালমা উম্মু রাফি’ (রা) হতে বর্ণিতঃ

নবী (সাঃআঃ) কখনো আঘাত পেলে বা তাহাঁর কাটা বিদ্ধ হলে তিনি আহত স্থানে মেহেদী লাগাতেন।

(৩৫০২) তিরমিযী ২০৫৪, আবূ দাঊদ ৩৮৫৮, আহমাদ ২৭০৭০। সহীহাহ ২০৫৯। তাহকীক নাসিরুদ্দিন আলবানীঃ হাসান। ঔষধি গাছহাদিস এর মানঃ হাসান হাদিস

সারাংশঃ সোনামুখী, মেহেদি, আঙ্গুর -হাদিস এ বিষয়ে ইবনু মাজাহ + সুনান আবু দাউদ + সুনান আত তিরমিজি

Leave a Reply