উম্মুল মুমিনীন উম্মু আইমান [রাদি.]-এর ফযিলত

উম্মুল মুমিনীন উম্মু আইমান [রাদি.]-এর ফযিলত

উম্মুল মুমিনীন উম্মু আইমান [রাদি.]-এর ফযিলত >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

১৮. অধ্যায়ঃ উম্মুল মুমিনীন উম্মু আইমান [রাদি.]-এর ফযিলত

৬২১১. আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] উম্মু আইমানের নিকট গেলেন। আমিও তাহাঁর সাথে গেলাম। তিনি তাহাঁর দিকে একটি শরবতের পাত্র এগয়ে দিলেন। আমি জানি না যে, নবী [সাঃআঃ] সিয়াম পালন করছিলেন, না এমনিতেই তা ফিরিয়ে দিলেন। উম্মু আইমান [রাদি.] এতে চীৎকার শুরু করে উঠলেন এবং তাহাঁর [সাঃ-এর] উপর [শরবত পানে] চাপ দিতে লাগলেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬০৯৫, ইসলামিক সেন্টার-৬১৩৬]

৬২১২. আনাস [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ]-এর ইন্তিকালের পর আবু বকর [রাদি.] উমর [রাদি.]-কে বলিলেন, চলো উম্মু আইমানের নিকট যাই, তাহাঁর সাথে দেখা করিতে যাবো, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] তাহাঁর সাথে দেখা করিতেন। যখন আমরা তাহাঁর নিকট গেলাম, তখন তিনি কাঁদতে লাগলেন। তাঁরা উভয়ে বলিলেন, তুমি কাঁদছ কনে? আল্লাহ তাআলার নিকট যা কিছু আছে তা তাহাঁর রসূলের জন্য সর্বাধিক উত্তম। উম্মু আইমান [রাদি.] বলিলেন, এজন্য আমি কাঁদছি না যে, আমি জানি না আল্লাহর কাছে যা কিছু আছে, তা রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ]-এর জন্য উত্তম বরং এজন্য আমি কাঁদছি যে, আকাশ হইতে ওয়াহী আসা বন্ধ হয়ে গেল। উম্মু আইমানের এ কথা তাঁদেরকে কান্নাপ্লুত করে তুলল। অতএব তাঁরাও তাহাঁর সঙ্গে কাঁদতে শুরু করিলেন।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬০৯৬, ইসলামিক সেন্টার-৬১৩৭]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply