উটের গোশত খেয়ে ওযূ করা সম্পর্কে

উটের গোশত খেয়ে ওযূ করা সম্পর্কে

উটের গোশত খেয়ে ওযূ করা সম্পর্কে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৫. অধ্যায়ঃ উটের গোশত খেয়ে ওযূ করা সম্পর্কে

৬৮৮

জাবির ইবনি সামুরাহ্‌ [রাযি:] হইতে বর্ণীতঃ

এক লোক রাসুলুল্লাহ [সাঃআঃ]-এর কাছে এসে জিজ্ঞেস করিল, আমি কি বকরীর গোশ্‌ত খেয়ে ওযূ করব? তিনি বলিলেন, তোমার ইচ্ছা ওযূ করিতে পার আর নাও করিতে পার। সে বলিল,আমি কি উটের গোশ্‌ত খেয়ে ওযূ করব? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ, উটের গোশ্‌ত খেয়ে তুমি ওযূ করিবে। সে বলিল, আমি কি বকরীর ঘরে নামাজ আদায় করিতে পারি? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ। সে বলিল, আমি কি উটের ঘরে নামাজ আদায় করিতে পারি? তিনি বলিলেন, না। {৯৮} [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৮৭, ইসলামিক সেন্টার- ৭০২]

{৯৮} যেহেতু অত্র হাদীসে স্পষ্ট প্রমাণ করছে যে, উটের গোশত খেলে ওযূ নষ্ট হয়ে যাবে। সেহেতু কোন প্রকার মন্তব্য ছাড়াই এ নির্দেশ মেনে নিতে হইবে। ওযূ অবস্থায় উটের গোশ্‌ত খেয়ে নামাজ আদায়ের ইচ্ছা করলে অবশ্যই পুনরায় ওযূ করিতে হইবে। উটের আস্তাবলে নামাজ আদায়ের নিষেধের কারণ হচ্ছে, উট দুষ্ট প্রকৃতির বিরাট পশু। নামাজ আদায়কারীর ক্ষতিসাধন করিতে পারে। পক্ষান্তরে বকরীর ঘরে নামাজ আদায় করলে ক্ষতি সাধনের আশঙ্কা নেই। [নাবাবী]

৬৮৯

আবু বক্‌র ইবনি আবু শায়বাহ্‌ ও কাসিম ইবনি যাকারিয়্যা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

জাবির ইবনি সামুরাহ [রাদি.] হইতে আবু কামিল-এর অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৬৮৮, ইসলামিক সেন্টার- ৭০৩]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply