ইহুদি নেতা কাব ইবনি আশরাফের হত্যা

ইহুদি নেতা কাব ইবনি আশরাফের হত্যা

ইহুদি নেতা কাব ইবনি আশরাফের হত্যা >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৪২. অধ্যায়ঃ ইহুদি নেতা কাব ইবনি আশরাফের হত্যা

৪৫৫৬. জাবির [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃকাব ইবনি আশরাফের [নিধনের] জন্য কে আছ? কেননা, সে আল্লাহ তাআলা ও তাহাঁর রসূল [সাঃআঃ] -কে কষ্ট দিয়েছে। তখন মুহাম্মাদ ইবনি মাসলামাহ্ [রাদি.] বলিলেন, হে আল্লাহ্‌র রসূল! আপনি কি চান যে, আমি তাকে হত্যা করি? তিনি বলিলেন, হ্যাঁ। তিনি বলিলেন, তবে আমাকে [প্রয়োজনমত যা ইচ্ছা] বলার অনুমতি দিন। তিনি বলিলেন, বলো। তারপর তিনি তার কাছে এলেন। তিনি [কথা প্রসঙ্গে তাদের পূর্বেকার] পারস্পরিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করিলেন এবং বলিলেন, “এ ব্যক্তি তো [অর্থাৎ -নবী [সাঃআঃ]] সদাকাহ্ উসূল করিতে চায় এবং সে আমাদের অতিষ্ঠ করে তুলেছে।” সে যখন তা শুনতে পেলো, তখন বললো, আরো অপেক্ষা কর। আল্লাহর কসম, সে তোমাদের কষ্ট দেবেই। তখন তিনি বলিলেন, আমরা সবেমাত্র তারঁ অনুসারী হয়েছি। তাই ব্যাপারটি শেষ পর্যন্ত কোথায় গিয়ে দাঁড়ায় তা না দেখে এ মুহূর্তেই তাকে ছেড়ে যাওয়াটা ঠিক মনে করছি না। এখন আমি চাই তুমি আমাকে কিছু ধার দাও। সে বলিল, তুমি আমার কাছে কিছু বন্ধক রাখবে? তিনি বলিলেন, তুমি কী চাও? সে বলিল, তোমাদের রমণীদের আমার কাছে বন্ধক রাখ। তিনি বলিলেন, “তুমি হলে আরবের সবচাইতে সুন্দর পুরুষ। তোমার কাছে বন্ধক রাখব আমাদের রমণীদের?” তখন সে বলিল, তাহলে তোমাদের সন্তানদের আমার কাছে বন্ধক রাখ। জবাবে তিনি বলিলেন, “আমাদের কারো সন্তানকে এ বলে গালি দেয়া হইবে যে, তাকে মাত্র দুওসাক [৫ মণ আড়াই সের পরিমাণ] খেজুরের বিনিময়ে বন্ধক রাখা হয়েছিল। আমরা বরং তোমাদের কাছে যুদ্ধাস্ত্র বন্ধক রাখবো। সে বলিল, “ঠিক আছে।” তখন তার সাথে ওয়াদাবদ্ধ হলেন যে, হারিস, আবু আবস ইবনি জাব্র ও আব্বাদ ইবনি বিশ্রসহ তার কাছে আসবেন। তারপর রাতের বেলা তাঁরা তার কাছে আসলেন এবং তাকে ডাকলেন। সে তাদের কাছে নেমে এল। রাবী সুফ্ইয়ান [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, রাবী আম্‌র ব্যতীত অন্য রাবী বলেন, তখন তার স্ত্রী তাকে বলিল, আমি এমন একটি আওয়াজ শুনতে পাচ্ছি তা যেন খুনের স্বর। সে বলিল, এ হচ্ছে মুহাম্মাদ আর তার দুধভাই আবু নায়িলাহ্। সম্ভ্র্রান্ত লোককে যদি রাতের বেলা বর্শাবিদ্ধ হওয়ার দিকে ডাকা হয় তবুও সে ডাকে সে সাড়া দেয়। মুহাম্মাদ [তার সঙ্গীদের] বলিলেন, সে যখন আসবে, তখন আমি তার মাথা লক্ষ্য করে আমার হাত বাড়াবো। যখন আমি তা ভালমতো ধরে নেবো, তখন তোমরা তোমাদের কাজ সেরে নেবে। তিনি বলেন, তারপর সে গায়ে চাদর জড়িয়ে নীচে নেমে এল। তাঁরা বলিলেন, আমরা তোমার নিকট থেকে অতি সুঘ্রাণ পাচ্ছি। সে বলিল, হ্যাঁ, আমার স্ত্রী অমুক হচ্ছে আরবের সর্বাধিক সুগন্ধ-পছন্দ মহিলা। তখন তিনি বলিলেন, “আমাকে তা থেকে একটু সুবাস নিতে অনুমতি দিবেন?” তখন সে বলিল, হ্যাঁ। তখন তিনি তার মাথা শুঁকলেন। তারপর আবার শুঁকলেন। এরপর পুনরায় বলিলেন, আমাকে কি আবারও একটু ঘ্রাণ নিতে দিবেন? এ কথা বলে তিনি তার মাথা শক্ত করে ধরে সাথীদের বলিলেন, তোমরা সেরে ফেল। তিনি বলেন, তখন তাঁরা তাকে হত্যা করে ফেললো।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৫১৩, ইসলামিক সেন্টার- ৪৫১৫]

By ইমাম মুসলিম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply