ইয়াকুব আঃ ইসমাঈল আঃ ও ইসহাক ইবনু ইবরাহীম (আঃ)

ইয়াকুব আঃ ইসমাঈল আঃ ও ইসহাক ইবনু ইবরাহীম (আঃ)

ইয়াকুব আঃ ইসমাঈল আঃ ও ইসহাক ইবনু ইবরাহীম (আঃ) >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন

পর্বঃ ৬০, আম্বিয়া কিরাম, অধ্যায়ঃ (১২-১৪)=৩টি

৬০/১২. অধ্যায়ঃ মহান আল্লাহর বাণীঃ এবং স্মরণ করুন এই কিতাবে ইসমাঈলের কথা, অবশ্যই তিনি ছিলেন ওয়াদা পালনে সত্যনিষ্ঠ। (মারইয়ামঃ ৫৪)
৬০/১৩. অধ্যায়ঃ নাবী‎ ইসহাক ইবনু ইবরাহীম (আঃ)-এর ঘটনা।
৬০/১৪. অধ্যায়ঃ আল্লাহ তাআলার বাণীঃ যখন ইয়াকূব (আঃ)-এর মৃত্যুকাল এসে হাযির হয়েছিল, তোমরা কি তখন সেখানে উপস্থিত ছিলে? যখন তিনি তাহাঁর সন্তানদের জিজ্ঞেস করছিলেন। (আল-বাকারাহঃ ১৩৩)

৬০/১২. অধ্যায়ঃ মহান আল্লাহর বাণীঃ এবং স্মরণ করুন এই কিতাবে ইসমাঈলের কথা, অবশ্যই তিনি ছিলেন ওয়াদা পালনে সত্যনিষ্ঠ। (মারইয়ামঃ ৫৪)

৩৩৭৩

সালামা ইবনু আকওয়া (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, একদা রাসূলুল্লাহ (সাঃআঃ) আসলাম গোত্রের একদল লোকের কাছ দিয়ে অতিক্রম করছিলেন। এ সময় তারা তীরন্দাজীর প্রতিযোগিতা করছিল। তখন রাসুলূল্লাহ (সাঃআঃ) বলিলেন, হে বনী ইসমাঈল! তোমরা তীরন্দাজী করে দাও। কেননা তোমাদের পূর্বপুরুষ তীরন্দাজ ছিলেন। সুতরাং তোমরাও তীরন্দাজী করে যাও আর আমি অমুক গোত্রের লোকদের সঙ্গে আছি। রাবী বলেন, তাদের এক পক্ষ হাত চালনা হইতে বিরত হয়ে গেল। তখন রসুলূল্লাহ (সাঃআঃ) বলিলেন, তোমাদের কী হল, তোমরা যে তীরন্দাজী করছ না? তখন তারা বলিল, হে আল্লাহর রাসুল! আমরা কিভাবে তীর ছুঁড়তে পারি, অথচ আপনি তো তাদের সঙ্গে রয়েছেন। তখন তিনি বলিলেন, তোমরা তীর ছুঁড়তে থাক, আমি তোমাদের সবার সঙ্গেই আছি।

৬০/১৩. অধ্যায়ঃ নাবী‎ ইসহাক ইবনু ইবরাহীম (আঃ)-এর ঘটনা।

এ সম্পর্কে ইবনু উমর ও আবু হুরাইরা (রাদি.) নাবী‎ (সাঃআঃ) হইতে হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন।

৬০/১৪. অধ্যায়ঃ আল্লাহ তাআলার বাণীঃ যখন ইয়াকূব (আঃ)-এর মৃত্যুকাল এসে হাযির হয়েছিল, তোমরা কি তখন সেখানে উপস্থিত ছিলে? যখন তিনি তাহাঁর সন্তানদের জিজ্ঞেস করছিলেন। (আল-বাকারাহঃ ১৩৩)

৩৩৭৪

আবু হুরাইরা (রাদি.) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, নাবী‎ (সাঃআঃ)-কে জিজ্ঞেস করা হল যে, লোকদের মধ্যে অধিক সম্মানিত ব্যক্তি কে? তিনি বলিলেন, তাদের মধ্যে যে সবচেয়ে অধিক আল্লাহ ভীরু, সে সবচেয়ে অধিক সম্মানিত। সাহাবাগণ বলিলেন, হে আল্লাহর নাবী‎! আমরা আপনাকে এ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করিনি। তিনি বলিলেন, তা হলে সবচেয়ে সম্মানিত ব্যক্তি হলেন আল্লাহর নাবী‎ ইউসুফ ইবনু আল্লাহর নাবী‎ (ইয়াকুব) ইবনু আল্লাহর নাবী‎ (ইসহাক) ইবনু আল্লাহর খালীল ইবরাহীম (আঃ)। তাঁরা বলিলেন, আমরা এ সম্পর্কেও জিজ্ঞেস করিনি। তিনি বলিলেন, তবে কি তোমরা আমাকে আরবদের উচ্চ বংশ সম্পর্কে জিজ্ঞেস করছ? তারা বলিল, হাঁ। তখন নাবী‎ (সাঃআঃ) বলিলেন, জাহিলিয়াতের যুগে তোমাদের মধ্যে যারা সবচেয়ে উত্তম ব্যক্তি ছিলেন ইসলাম গ্রহণের পরও তারাই সবচেয়ে উত্তম ব্যক্তি, যদি তাঁরা ইসলামের জ্ঞান অর্জন করে থাকেন।

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply