ইতিকাফে ইচ্ছুক ব্যক্তি কখন ইতিকাফের স্থানে প্রবেশ করিবে

ইতিকাফে ইচ্ছুক ব্যক্তি কখন ইতিকাফের স্থানে প্রবেশ করিবে

ইতিকাফে ইচ্ছুক ব্যক্তি কখন ইতিকাফের স্থানে প্রবেশ করিবে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২. অধ্যায়ঃ ইতিকাফে ইচ্ছুক ব্যক্তি কখন ইতিকাফের স্থানে প্রবেশ করিবে

২৬৭৫

আয়েশাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] ইতেকাফ করার ইচ্ছা করলে ফাজরের নামাজ আদায়ের পর ইতিকাফের স্থানে প্রবেশ করিতেন। একবার তিনি [মাসজিদের অভ্যন্তরে] তাঁবু খাটানোর নির্দেশ দিলেন এবং তদানুযায়ী তা খাটানো হল। তিনি রমাযানের শেষ দশকে ইতেকাফ করার সংকল্প করিলেন। উম্মুল মুমিনীন যায়নাব [রাদি.]-ও তাহাঁর তাঁবু খাটিয়ে দেয়ার নির্দেশ দিলেন এবং তা খাটানো হল। অতঃপর নবী [সাঃআঃ] এর অপরাপর স্ত্রীগণও নিজ নিজ তাঁবুগুলো খাটানোর নির্দেশ দিলেন এবং তা খাটানো হল। ফাজরের নামাজ শেষে রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] তাকিয়ে তাঁবুগুলো খুলে ফেলার নির্দেশ দিলেন এবং তা তুলে ফেলা হল। তিনি রমাযানের ইতেকাফ ভঙ্গ করিলেন এবং শাওওয়াল মাসের প্রথম দশকে কাযা করিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৬৫২, ইসলামিক সেন্টার- ২৬৫১]

২৬৭৬

আয়েশাহ [রাদি.] এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাঃআঃ] থেকে আবু মুআবিয়াহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বর্ণিত হাদীসের মর্মার্থানুযায়ী বর্ণিত হয়েছে।

ইবনি উয়াইনাহ্, আমর ইবনিল হারিস ও ইবনি ইসহাক্বের বর্ণনায় আয়িশা [রাদি.], হাফসাহ্ [রাদি.] ও যায়নাব [রাদি.] সম্পর্কে উল্লেখ আছে যে, তারা ইতিকাফের উদ্দেশে তাঁবু খাটিয়েছিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ২৬৫৩, ইসলামিক সেন্টার- ২৬৫২]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply