নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলাকে নিদ্রা স্পর্শ করে না

নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলাকে নিদ্রা স্পর্শ করে না

নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলাকে নিদ্রা স্পর্শ করে না >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিচে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায় পড়ুন

৭৯. অধ্যায়ঃ রসুলুল্লাহ [সাঃআ:]-এর বাণী- নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলাকে নিদ্রা স্পর্শ করে না ; তিনি [সাঃআ:] আরও বলেনঃ “নূরই তাহাঁর আড়াল, যদি তা প্রকাশ পেত তাহলে তাহাঁর চেহারার জ্যোতি সৃষ্টি জগতের যতদুর পর্যন্ত পৌঁছতো তা পুড়ে ছারখার করে দিতো”

৩৩৪

আবু মূসা [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

একবার রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] আমাদের সামনে দাঁড়িয়ে পাঁচটি কথা বললেনঃ [১] আল্লাহ্‌ কখনও নিদ্রা যান না। [২] নিদ্রিত হওয়া তাহাঁর সাজেও না। [৩] তিনি তাহাঁর ইচ্ছানুসারে মীযান [দাঁড়িপাল্লা] নামান এবং উত্তোলন করেন। [৪] দিনের পূর্বেই রাতের সকল আমাল তাহাঁর কাছে পেশ করা হয়। রাতের পূর্বেই দিনের সকল আমাল তাহাঁর কাছে পেশ করা হয়। [৫] তিনি নূরের পর্দায় আচ্ছাদিত। আবু বকর [রাঃআ:]-এর আরেক বর্ণনায় [আরবী] [আলো] এর পরিবর্তে [আরবী] [আগুন] শব্দের উল্লেখ রয়েছে। রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] বলেন, যদি সে আবরণ খুলে দেয়া হয়, তবে তাহাঁর নুরের আলোচ্ছটা সৃষ্টি জগতের দৃশ্যমান সব কিছু ভস্ম করে দিবে। [ই.ফা. ৩৪২, ই সে. ৩৫৩]

৩৩৫

আমাশ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

পূর্ব বর্ণিত সূত্রে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে এ রিওয়ায়াতে বলা হয়েছে, রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] আমাদের সম্মুখে চারটি কথা নিয়ে দাঁড়ালেন। বর্ণনাকারী আবু মুআবিয়ার হাদীসের অনুরূপ বর্ণনা করেন। তবে তিনি [আরবী] সৃষ্টি জগতের শব্দ উল্লেখ করেননি এবং তিনি [আরবী] তিনি নূরের পর্দায় আচ্ছাদিত শব্দ উল্লেখ করিয়াছেন। [ই.ফা. ৩৪৩; ই.সে. ৩৫৪]

৩৩৬

আবু মূসা [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] আমাদের সম্মুখে চারটি কথা নিয়ে আলোচনা করে বলেন, আল্লাহ্‌ তাআলা কখনো নিদ্রা যান না আর নিদ্রা তাহাঁর জন্য শোভাও পায় না, তিনি তুলাদণ্ড উচু এবং নীচু করেন, তাহাঁর নিকট রাতের পূর্বেই দিনের আমাল উত্থিত হয় এবং দিনের পূর্বে রাতের আমাল উত্থিত হয়। [ই.ফা. ৩৪৪; ই.সে. ৩৫৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply