আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা সর্বোত্তম আমল

আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা সর্বোত্তম আমল

আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা সর্বোত্তম আমল >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৩৬. অধ্যায়ঃ আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা সর্বোত্তম আমল

১৫০

আবু হুরাইরাহ [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] কে প্রশ্ন করা হলো, সর্বোত্তম আমাল কোনটি? তিনি বলিলেন, মহিমান্বিত আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা। আবার জিজ্ঞেস করা হলো, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন, আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করা। প্রশ্ন করা হলো, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন, যে হাজ্জ কবূল হয়। মুহাম্মাদ ইবনি জাফারের রিওয়ায়াতে আছেঃ তিনি বলিলেন, আল্লাহ ও তাহাঁর রসূল [সাঃআ:] এর প্রতি ইমান আনা। মুহাম্মাদ ইবনি রাফি ও আবদ ইবনি হুমায়দ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] ….. যুহরী সূত্রেও এ সানাদে অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ই.ফা. ১৫১; ই.সে. ১৫৬-১৫৭]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫১

আবু যার [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

আমি জিজ্ঞেস করলাম, ইয়া রসুলুল্লাহ! সর্বোত্তম আমাল কোনটি? তিনি বলিলেন, আল্লাহর প্রতি ঈমান আনা এবং আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করা। আমি আবার প্রশ্ন করলামঃ কোন ধরণের গোলাম আযাদ করা উত্তম? তিনি বলিলেন, সে গোলাম আযাদ করা উত্তম যে মুনিবের কাছে অধিক প্রিয় এবং অধিক মূল্যমান। আমি আরয করলাম, আমি যদি তা করিতে না পারি। তিনি বলিলেন, তাহলে অন্যের কর্মে সাহায্য করিবে অথবা কর্মহীনের কাজ করে দিবে। আমি আরয করলাম, ইয়া রসুলুল্লাহ! যদি আমি এমন কোন কাজ করিতে অক্ষম হই? তিনি বলিলেন, তোমার মন্দ আচরণ থেকে লোকদের মুক্ত রাখবে। এ হলো তোমার পক্ষ থেকে তোমার প্রতি সদাকাহ। [ই.ফা. ১৫২; ই.সে. ১৫৮]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫২

মুহাম্মাদ ইবনি রাফি এবং আবদ ইবনি হুমায়ন [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] আবু যার [রাঃআ:]-এর সূত্রে হইতে বর্ণিতঃ

নবি [সাঃআ:] থেকে অবিকল হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। তবে তার বর্ণনায় একটু শাব্দিক পার্থক্য রয়েছে, অর্থ একই। [ই.ফা. ১৫৩; ই.সে. ১৫৯]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫৩

আবদুল্লাহ ইবনি মাসুদ [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

আমি রসুলুল্লাহ [সাঃআ:]-কে প্রশ্ন করলাম, সর্বোত্তম আমাল কোনটি? তিনি বলিলেন, সময় মত সলাত আদায় করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন, পিতা-মাতার প্রতি সদ্ব্যবহার করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন, আল্লাহর পথে জিহাদ করা। তাহাঁর কষ্ট হইবে এ ভেবে অতিরিক্ত থেকে বিরত থাকলাম। [ই.ফা. ১৫৪; ই.সে. ১৬০]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫৪

আবদুল্লাহ ইবনি মাসউদ [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি জিজ্ঞেস করলাম, হে আল্লাহর নবি! কোন আমাল জান্নাতের নিক্তবর্তী করে? তিনি বলিলেন, সঠিক ওয়াক্তে সলাত আদায় করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, আর কোনটি, হে আল্লাহর নবি [সাঃআ:]? তিনি বলিলেন, মাতা-পিতার সঙ্গে সদ্বব্যবহার করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, আর কোনটি, হে আল্লাহর নবি? তিনি বলিলেন, আল্লাহর পথে জিহাদ করা। [ই.ফা. ১৫৫; ই.সে. ১৬১]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫৫

আবদুল্লাহ ইবনি মাসুউদ [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি রসুলুল্লাহ [সাঃআ:] কে প্রশ্ন করলাম, আল্লাহর নিকট সর্বাধিক প্রিয় আমাল কোনটি? তিনি বলিলেন, সঠিক সময়ে সলাত আদায় করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন, পিতা-মাতার প্রতি সদ্বব্যবহার করা। আমি জিজ্ঞেস করলাম, তারপর কোনটি? তিনি বলিলেন আল্লাহর পথে জিহাদ করা। তিনি আমাকে এ কথাগুলো বলিলেন, যদি আমি আরো প্রশ্ন করতাম তাহলে তিনি আরো অতিরিক্ত বিষয়ে বলিতেন। [ই.ফা. ১৫৬; ই.সে. ১৬২]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫৬

শুবা [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণিতঃ

অনুরূপ হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন এতে ….. আরবী ….. .. তিনি “আবদুল্লাহ ইবনি মাসউদের গৃহের দিকে ইশারা করিলেন, কিন্তু আমাদের সম্মুখে তার নাম উল্লেখ করেননি” কথা গুলো বর্ধিত রয়েছে। [ই.ফা. ১৫৭; ই.সে. ১৬৩]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

১৫৭

আবদুল্লাহ [রাঃআ:] হইতে বর্ণিতঃ

নবি [সাঃআ:] বলেছেন, সঠিক সময়ে সলাত আদায় করা এবং পিতা-মাতার প্রতি সদ্বব্যবহার করা আমালসমূহের মধ্যে বা আমালের মধ্যে সর্বোত্তম আমাল। [ই.ফা. ১৫৮; ই.সে. ১৬৪]

হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply