জিহাদে ও আল্লাহর পথে বের হওয়ার মাহাত্ম্য

জিহাদে ও আল্লাহর পথে বের হওয়ার মাহাত্ম্য

 জিহাদে ও আল্লাহর পথে বের হওয়ার মাহাত্ম্য >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

২৮. অধ্যায়ঃ জিহাদে ও আল্লাহর পথে বের হওয়ার মাহাত্ম্য

৪৭৫৩

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] বলেছেন: আল্লাহ তাআলা সে ব্যক্তির দায়িত্ব স্বহস্তে তুলে নিয়েছেন যে ব্যক্তি তাহাঁরই রাস্তায় ঘর থেকে বের হয়। আমারই রাস্তায় জিহাদ, আমার প্রতি ঈমান এবং আমার রাসূলের প্রতি দৃঢ় বিশ্বাসই তাকে ঘর থেকে বের করে তখন আমারই যিম্মায় বর্তায় যে, আমি তাকে জান্নাতে প্রবেশ করিয়ে দেবো নতুবা সে তার যে বাসস্থান থেকে বেরিয়েছিল, তার প্রাপ্য সাওয়াব গনীমাতসহ তাকে সেখানে ফিরিয়ে আনবো। কসম সে পবিত্র সত্তার যাঁর হাতে মুহাম্মাদের প্রাণ! আল্লাহ তাআলার পথে যে ব্যক্তি যে পরিমাণই যখম হয় না কেন, কিয়ামাতের দিন সে ঠিক যখম অবস্থায়ই আসবে; তার বর্ণ হইবে রক্ত বর্ণ আর ঘ্রাণ হইবে কস্তুরীর। কসম সে পবিত্র সত্তার যাঁর হাতে মুহাম্মাদের প্রাণ! যদি মুসলিমদের জন্য কষ্টকর না হতো তবে আমি কখনো আল্লাহর রাস্তায় জিহাদের অভিযানে লিপ্ত দলে যোগদান না করে ঘরে বসে থাকতাম না। কিন্তু আমার কাছে এমন সামর্থ্য নেই যে, যারা আল্লাহর পথে জিহাদ করেন তাঁদের সকলকে বাহন দান করবো, আর তাঁদের নিজেদেরও সে সঙ্গতি নেই [যে, নিজেরাই নিজেদের বাহন নিয়ে বের হইবে]। আর তাদের জন্যে এটা খুবই কষ্টকর হইবে যে, [আমি যুদ্ধে বেরোবার পর আমার সঙ্গে না গিয়ে] তারা পিছনে পড়ে থাকিবে। কসম সে পবিত্র সত্তার যাঁর হাতে মুহাম্মাদের প্রাণ! আমার একান্ত ইচ্ছা হয় আল্লাহর রাস্তায় জিহাদ করি আর তাতে শহীদ হই, তারপর আবার জিহাদ করি, আবারও শহীদ হই, আবার জিহাদ করি, আবারও শহীদ হই [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭০৬, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭০৭]

৪৭৫৪

উমারাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি]-এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

এ সানাদে উক্ত হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭০৭, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭০৮]

৪৭৫৫

আবু হুরাইরাহ [রাদি.]-এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেন: আল্লাহ সে ব্যক্তির দায়িত্ব নিয়েছেন, যে তাহাঁরই পথে জিহাদ করে, তাকে ঘর থেকে বের করে কেবল তাহাঁরই রাস্তায় জিহাদ আর তাহাঁরই কালিমায় বিশ্বাস। সে দায়িত্বটি হচ্ছে, হয় তাকে জান্নাতে প্রবেশ করাবেন, না হয় তার প্রাপ্য সাওয়াব ও গণীমাতসহ সে স্থানে ফিরিয়ে আনবেন যেখান থেকে সে [জিহাদে] বেরিয়েছিল [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭০৮, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭০৯]

৪৭৫৬

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

নবী [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেন: এমন কেউ নেই যে আল্লাহর পথে আঘাত পায় আর আল্লাহই সম্যক জানেন, যে কেউ তাহাঁর পথে যখম হইবে সে কিয়ামতের দিন এরূপ অবস্থায় আসবে যে, তার আঘাতপ্রাপ্ত স্থান দিয়ে রক্ত বের হইবে, তার রং হইবে রক্তের; কিন্তু সুবাস হইবে কস্তুরীর। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭০৯, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭১০]

৪৭৫৭

হাম্মাম ইবনি মুনাব্বিহ্ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

আবু হুরায়রা্ [রাদি.] রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] থেকে যেসব হাদীস বর্ণনা করিয়াছেন, তন্মধ্যে একটি হলো, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ আল্লাহর পথে মুসলিম যে যখমেই আক্রান্ত হয়, কিয়ামাতের দিন তা ঠিক যখন আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছিল সেরূপ হইবে; রক্ত প্রবাহিত হইতে থাকিবে যার রং রক্তেরই রং হইবে আর সুবাস হইবে কস্তুরীর। আর রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, যাঁর হাতে মুহাম্মাদের প্রাণ সে পবিত্র সত্তার কসম! যদি মুমিনদের জন্য কষ্টকর না হতো তবে আমি কোন সেনাদলের যারা আল্লাহর পথে জিহাদে বের হয় তাদের পিছনে বসে থাকতাম না। কিন্তু আমার সে সামর্থ্য নেই যা দিয়ে আমি তাদের সকলকে বাহন দিতে পারি, আর না তাদেরই সে সামর্থ্য আছে যে, [নিজ থেকে বাহন নিয়ে যুদ্ধযাত্রাকালে] আমার অনুসরণ করিবে, আর আমার [যুদ্ধ অভিযানে বের হয়ে যাওয়ার] পর ঘরে বসে থাকতে তাদের মনে ভাল লাগবে না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭১০, ইসলামিক সেন্টার-৪৭১১]

৪৭৫৮

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ]- কে বলিতে শুনেছি, যদি মুমিনের জন্যে কষ্টকর না হতো, তবে [যুদ্ধে অংশগ্রহন না করে] আমি কোন সেনাদলের পিছনে বসে থাকতাম না। পরবর্তী অংশ উপরোক্ত বর্ণনাকারীদের অনুরূপ আর এ সানাদে বর্ণিত আছে যে, কসম সে পবিত্র সত্তার, যাঁর হাতে আমার প্রাণ। আমি মনে প্রাণে কামনা করি আমি আল্লাহর রাস্তায় শহীদ হই, তারপর জীবন লাভ করি। আবু যুরআহ্‌ কর্তৃক আবু হুরায়রা্‌ [রাদি.] হইতে বর্ণিত হাদীসের অনুরূপ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭১১, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭১২]

৪৭৫৯

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যদি আমার উম্মাতের জন্যে কষ্টকর মনে না করতাম, তবে আমি পছন্দ করতাম যেন কোন সেনাদলের পিছনে থেকে না যাই। পরবর্তী অংশ পূর্ববর্তীদের হাদীসের অনুরূপ। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭১২, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭১৩]

৪৭৬০

আবু হুরাইরাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেনঃ যে ব্যক্তি আল্লাহর রাস্তায় বের হয় আল্লাহ তার দায়িত্ব নিয়ে নেন। এ উক্তি পর্যন্ত; কোন সেনাদলের যে দল আল্লাহর রাস্তায় জিহাদে বের হয়েছে তার পিছনে থাকতাম না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৪৭১৩, ইসলামিক সেন্টার- ৪৭১৪]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply