আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.)-এর মর্যাদা।

আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.)-এর মর্যাদা।

আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.)-এর মর্যাদা। >> বুখারী শরীফ এর মুল সুচিপত্র পড়ুন

৬২/২৭. অধ্যায়ঃ আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.)-এর মর্যাদা।

৩৭৫৯

মাসরূক (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আবদুল্লাহ ইবনু আমর (রাদি.) বলেছেন, আল্লাহর রাসুল (সাঃআঃ) জন্মগতভাবে বা ইচ্ছাপূর্বক অশ্লীল ভাষী ছিলেন না। তিনি বলেছেন, তোমাদের মধ্যে ঐ ব্যক্তিই আমার সবচেয়ে প্রিয় যে সর্বোত্তম চরিত্রের অধিকারী।

(ইঃফাঃ ৩৪৮৫ প্রথমাংশ)

৩৭৬০

মাসরূক (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি আরো বলেছেন, তোমরা চার ব্যক্তির নিকট হইতে কুরআন শিক্ষা কর, আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ, সালিম মাওলা আবু হুযায়ফা, উবাই ইবনু কাব ও মুআয ইবনু জাবাল (রাদি.)।

(আঃপ্রঃ ৩৪৭৭, ইঃফাঃ ৩৪৮৫ শেষাংশ)

৩৭৬১

আলকামাহ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি সিরিয়া গেলাম। মসজিদে দুরাকআত সালাত আদায় করে দুআ করলাম, হে আল্লাহ, আমাকে একজন সৎ সাথী মিলিয়ে দিন। তখন আমি একজন বৃদ্ধকে আসতে দেখলাম। তিনি ছিলেন আবু দারদা (রাদি.)। তিনি যখন আমার নিকটে আসলেন, তখন আমি বললাম, আশা করি আমার দুআ কবুল হয়েছে। তিনি আমাকে জিজ্ঞেস করিলেন, তুমি কোথাকার লোক? আমি বললাম, আমার ঠিকানা কুফায়। তিনি বলিলেন, তোমাদের মাঝে নাবী সাঃআঃ-এর জুতা, বালিস ও উযূর পাত্র বহনকারী [আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.)] কি বিদ্যমান নেই? তোমাদের মাঝে ঐ ব্যক্তি কি নেই, যাকে শয়তান হইতে নিরাপদ করে দেয়া হয়েছে? [অর্থাৎ আম্মার (রাদি.)]। তোমাদের মাঝে কি গোপন তথ্যাভিজ্ঞ ব্যক্তিটি [হুযাইফাহ (রাদি.)] নেই, যিনি ব্যতীত এসব গোপন রহস্য অন্য কেউ জানে না। (আমি বললাম, আছেন) অতঃপর তিনি জিজ্ঞেস করিলেন, ইবনু মাসঊদ (রাদি.) وَاللَّيْلِ কিভাবে পড়েন? আমি পড়লাম,

وَاللَّيْلِ إِذَا يَغْشَى وَالنَّهَارِ إِذَا تَجَلَّى وَالذَّكَرِ وَالأُنْثَى

এভাবে পড়েন। তিনি বলিলেন, নাবী সাঃআঃ আমাকে সুরাটি এভাবে পড়তে শিখিয়েছেন। কিন্তু এসব লোক বার বার বলে আমাকে এ থেকে সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছে। (৩২৮৭)

(আঃপ্রঃ ৩৪৭৮, ইঃফাঃ ৩৪৮৬)

৩৭৬২

আবদুর রাহমান ইবনু ইয়াযীদ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমরা হুযাইফা (রাদি.)-কে এমন এক ব্যক্তির সন্ধান দিতে অনুরোধ করলাম যার আকার আকৃতি, চাল-চলন, আচার-ব্যবহার এবং স্বভাব-চরিত্রে নাবী (সাঃআঃ)-এর সঙ্গে সবচেয়ে মিল আছে, আমরা তাহাঁর হইতে শিক্ষা গ্রহণ করব। হুযায়ফা (রাদি.) বলিলেন, আকার-আকৃতি, চাল-চলন, আচার-ব্যবহার এবং স্বভাব-চরিত্রে নাবী (সাঃআঃ)-এর সঙ্গে মিল আছে এমন লোক আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.) ছাড়া অন্য কাউকেও আমি জানি না।

(আঃপ্রঃ ৩৪৭৯, ইঃফাঃ ৩৪৮৭)

৩৭৬৩

আসওয়াদ ইবনু ইয়াযীদ (রহমাতুল্লাহি আলাইহি) হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, আমি আবু মূসা আশআরী (রাদি.)-কে বলিতে শুনিয়াছি যে, আমি এবং আমার ভাই ইয়ামান হইতে মদীনাতে আসি এবং বেশ কিছুদিন মদীনাতে অবস্থান করি। তখন আমরা মনে করতাম যে, আবদুল্লাহ ইবনু মাসঊদ (রাদি.) নাবী (সাঃআঃ)-এর পরিবারেরই একজন লোক। কারণ আমরা তাঁকে এবং তাহাঁর মাকে সর্বদা নাবী (সাঃআঃ)-এর ঘরে প্রবেশ করিতে দেখতাম।

(আঃপ্রঃ ৩৪৮০, ইঃফাঃ ৩৪৮৮)

By ইমাম বুখারী

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply