আনসার গণের উত্তম গৃহসমূহ

আনসার গণের উত্তম গৃহসমূহ

আনসার গণের উত্তম গৃহসমূহ >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৪৪. অধ্যায়ঃ আনসার গণের উত্তম গৃহসমূহ

৬৩১৫. আবু সাঈদ খুদরী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেন: আনসারদের ঘরসমূহের মাঝে সবচেয়ে ভাল ঘর হলো বানূ নাজ্জার সম্প্রদায়ের, তারপর বানূ আশহালের ঘর, তারপর বানূ হারিস ইবনি খাযরাজের ঘর, তারপরহলো বানূ সাইদাহ সম্প্রদায়ের গৃহ। আনসারদের প্রত্যেকটি গৃহেই কল্যাণ বিরাজ করছে। সাদ [রাদি.] বলেন, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] আমাদের উপর অন্যদের গুরুত্ব দিয়েছেন। লোকেরা বলিল, তোমাদেরকেও অনেকের উপর স্থান দিয়েছেন।

[ই.ফা.৬১৯৩, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৩৯]

৬৩১৬. আবু উসায়দ আনসারী [রাদি.] এর সানাদ হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] হইতে অবিকল বর্ণিত রয়েছে।

[ই.ফা.৬১৯৪, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৪০]

৬৩১৭. আনাস [রাদি.] এর সূত্র হইতে বর্ণীতঃ

রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] হইতে হুবহু বর্ণিত রয়েছে। কিন্তু তিনি তার বর্ণিত হাদীসে সাদ[রাদি.] এর উক্তিটি বর্ণনা করেননি।

[ই.ফা.৬১৯৫, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৪১]

৬৩১৮. ইব্রাহীম ইবনি মুহাম্মাদ ইবনি তালহাহ [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি আবু উসায়দ [রাদি.] কে ইবনি উতবার নিকট ভাষণ দিতে শুনেছি যে, তিনি বলেন রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেন আনসারদের গৃহসমূহের মধ্যে সর্বোত্তম গৃহ বানূ নাজ্জারের ঘর, বানূ আশহালের ঘর, বানূ হারিস ইবনি খাযরাজের ঘর এবং বানূ সাইদার ঘর। তিনি বলেন, আল্লাহর শপথ! আমি যদি আনসাদের উপরে কাউকে মর্যাদায় অগ্রাধিকার দিতাম তাহলে আমার কাওমকে অগ্রাধিকার দিতাম।

[ই.ফা.৬১৯৬, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৪২]

৬৩১৯.আবু উসায়দ আনসারী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আবু সালামাহ সাক্ষ্য দিচ্ছেন যে, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলেছেন আনসারদের গৃহের মধ্যে সর্বোত্তম হচ্ছে বানূ নাজ্জারের ঘর, এরপর বানূ আব্দুল আশহালের ঘর এরপর বানূ হারিস ইবনি খাযরাজের ঘর এরপর বানূ সাইদার ঘর। তাছাড়া প্রত্যেক আনসারীর গৃহেই কল্যাণ বিরাজ করছে। আবু সালামাহ [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] বলেন, আবুউসায়দ [রাদি.] বলেছেন আমি যদি মিথ্যাচার করতাম তাহলে আমি বংশ বানূ সাইদাহ দিয়ে আরম্ভ করতাম। তাতে আমি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর উপর অপবাদকারীরূপে গণ্য হতাম। ব্যাপারটি সাদ ইবনি উবাদাহ[রাদি.] এর কাছে পৌঁছালে তিনি অস্বস্তিবোধ করিলেন এবং তিনি বলিলেন, আমাদের পেছনে দেয়া হয়েছে। অতএব আমরা চার জনের মধ্যে চতুর্থ [শেষ] স্থান পড়ে গেছি। আমার গাধার পৃষ্ঠে গদি লাগাও আমি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর নিকট চলে যাব। তাহাঁর সাথে তাহাঁর ভাইয়ের ছেলে সাহলের কথোপকথন হচ্ছিল। সে বলেছিল, আপনি কি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর নিকট প্রতিবাদ জানানোর জন্য যাবেন বরং রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] সর্বাধিক জ্ঞাত? চার জনের মাঝে চতুর্থ হওয়া কি আপনার জন্য যথেষ্ট নয়? তখন তিনি থামলেন এবংবলিলেন, আল্লাহ ও তাহাঁর রসূল সর্বাধিক জ্ঞাত। তারপর তিনি তার গাধার জিন খুলতে নির্দেশ দিলেন এবং তা খুলে ফেলা হলো।

[ই.ফা.৬১৯৭, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৪৩]

৬৩২০. আবু উসায়দ আনসারী [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] কে বলিতে শুনেছেন যে, সর্বাধিক উত্তম আনসার কিংবা আনসারদের সবচেয়ে উত্তম গৃহ বর্ণনা করার ক্ষেত্রে তাদের বর্ণিত হাদীসের অবিকল। কিন্ত তিনি তার বর্ণনায় সাদ ইবনি উবাদার কাহিনী বর্ণনা করেননি।

[ই.ফা.৬১৯৮, ইসলামিক সেন্টার- ৬২৪৪]

৬৩২১. আবু সালামাহ উবাইদুল্লাহ ইবনি আব্দুল্লাহ ইবনি উতবাহ ইবনি মাসউদ হইতে বর্ণীতঃ

আবু হুরায়রা [রাদি.] কে বলিতে শুনেছেন যে, রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] মুসলিমদের এক বিরাট সমাবেশে বলেছেন আমি কি লোকেদেরকে আনসারদের সর্বাপেক্ষা ভাল গৃহ সম্বন্ধে উল্লেখ করব? তখন তারা বলিলেন জ্বি হ্যাঁ, হে আল্লাহর রসূল [সাঃআঃ]! রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] বলিলেন বানূ আব্দুল আশহাল। তাঁরা বলিলেন তারপর কারা? হে আল্লাহর রসূল [সাঃআঃ] তিনি বলিলেন তারপর বানূ নাজ্জার। তাঁরা বলিলেন, হে আল্লাহর রসূল [সাঃআঃ] তারপর কারা? তিনি বলিলেন, এরপর বানূ হারিস ইবনি খাযরাজ। তাঁরা বলিলেন এরপর কারা হে আল্লাহর রসূল [সাঃআঃ] তিনি বলিলেন, বানূ সাইদাহ। তাঁরা বলিলেন, তারপর কারা? তখন তিনি বলিলেন, প্রত্যেক আনসারীর গৃহে কল্যাণ বিরাজ করছে তখন সাদ ইবনি উবাদাহ [রাদি.] রাগতস্বরে উঠে দাঁড়িয়ে বলিলেন, আমরা কি চারের মাঝে সর্বশেষ? যখন রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] তাদের নামোল্লেখ করিলেন তখন তিনি তাহাঁর কথার বিরুদ্ধাচরণ করার আকাঙ্ক্ষা করছিলেন। তখন তাহাঁর সম্প্রদায়ের কতক ব্যক্তি তাঁকে বলিল, আপনি বসে পড়ুন। আপনি কি এতে খুশী নন যে রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] যে চারটি সম্প্রদায়ের কথা বলেছেন তন্মধ্যে আপনার সম্প্রদায়কে অন্তর্ভুক্ত করিয়াছেন? যাদের কথা তিনি উল্লেখ করিয়াছেন তাদের চাইতে যাদের কথা তিনি বর্ণনা করেননি তাদের সংখ্যাই তো বেশি। তখন সাদ ইবনি উবাদাহ [রাদি.] রসূলুল্লাহ্ [সাঃআঃ] এর কথার প্রত্যুত্তর করা হইতে বিরত থাকলেন।

[ই.ফা.৬১৯৯, ইসলামিক সেন্টার-৬২৪৫]

By মুসলিম শরীফ

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই এই পোস্ট টি উপরের Facebook বাটনে এ ক্লিক করে শেয়ার করুন অশেষ সাওয়াব হাসিল করুন

Leave a Reply