আইয়্যামে তাশরীকের রাতগুলো মিনায় অতিবাহিত করা ওয়াজিব

আইয়্যামে তাশরীকের রাতগুলো মিনায় অতিবাহিত করা ওয়াজিব

আইয়্যামে তাশরীকের রাতগুলো মিনায় অতিবাহিত করা ওয়াজিব >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৬০. অধ্যায়ঃ আইয়্যামে তাশরীকের রাতগুলো মিনায় অতিবাহিত করা ওয়াজিব, পানি সরবরাহকারীগণ এ নির্দেশের বহির্ভূত

৩০৬৮

ইবনি উমর [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

আব্বাস ইবনি আবদুল মুত্তালিব [রাদি.] মিনার রাতগুলো মাক্কাতে অতিবাহিত করার জন্য রাসূলুল্লাহ [সা.]-এর নিকট অনুমতি প্রার্থনা করিলেন। কারণ পানি সরবরাহের দায়িত্ব তার উপর ন্যস্ত ছিল। তিনি তাকে অনুমতি দিলেন। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩০৪৩, ইসলামিক সেন্টার- ৩০৪০]

৩০৬৯

উবায়দুল্লাহ ইবনি উমর [রহমাতুল্লাহি আলাইহি] হইতে বর্ণীতঃ

এ সূত্রে পূর্বোক্ত হাদীসের অনুরূপ বর্ণিত হয়েছে। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩০৪৪, ইসলামিক সেন্টার- ৩০৪১]

৩০৭০

বকর ইবনি আবদুল্লাহ আল মুযানী [রহমাতুল্লাহি আলাইহি হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, আমি ইবনি আব্বাস [রাদি.]-এর সাথে কাবার সন্নিকটে বসা ছিলাম। এ সময় এক বেদুঈন তাহাঁর নিকট উপস্থিত হয়ে বলিল, কী ব্যাপার? আমি দেখছি আপনার চাচাতো ভাইয়েরা [আগন্তুকদের] মধু ও দুধ পান করায়। আর আপনারা নাবী্য [খেজুরের তৈরী শরবত] পান করান? তা কি আপনাদের দরিদ্রতার কারণে, না কৃপণতার কারণে? ইবনি আব্বাস [রাদি.] “আল্হামদু লিল্লাহ” উচ্চারণ করে বলিলেন, আমাদের না দারিদ্র্য আক্রান্ত করেছে, না কৃপণতা। প্রকৃত ব্যাপার এই যে, নবী [সাঃআঃ] তাহাঁর সওয়ারীতে চড়ে এখানে এলেন এবং তাঁকে এক পেয়ালা নবীয দিলাম। তিনি তা পান করিলেন এবং অবশিষ্টটুকু উসামাকে পান করালেন। এরপর তিনি বলিলেন, “তোমরা খুবই উত্তম কাজ করছো এবং এরূপই করিতে থাক।” অতএব রাসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] আমাদের যা করার নির্দেশ দিয়েছেন- আমরা তার পরিবর্তন করিতে চাই না। [ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৩০৪৫, ইসলামিক সেন্টার- ৩০৪২]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply