অমুসলিম রাষ্ট্রের কোন জনপদে আযানের শব্দ শুনা গেলে

অমুসলিম রাষ্ট্রের কোন জনপদে আযানের শব্দ শুনা গেলে

অমুসলিম রাষ্ট্রের কোন জনপদে আযানের শব্দ শুনা গেলে >> সহীহ মুসলিম শরীফ এর মুল সুচিপত্র দেখুন >> নিম্নে মুসলিম শরীফ এর একটি অধ্যায়ের হাদিস পড়ুন

৬. অধ্যায়ঃ অমুসলিম রাষ্ট্রের [বা এলাকার] কোন জনপদে আযানের শব্দ শুনা গেলে সেখানে আক্রমণ করা নিষেধ

৭৩৩ : আনাস ইবনি মালিক [রাদি.] হইতে বর্ণীতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] প্রভাতে শত্রুর উপর আক্রমণ করিতেন। তিনি আযানের শব্দ শুনার জন্যে কান পেতে অপেক্ষায় থাকতেন। তিনি আযান শুনতে পেলে আক্রমণ থেকে বিরত থাকতেন, অন্যথায় আক্রমণ করিতেন। তিনি এক ব্যক্তিকে

اللَّهُ أَكْبَرُ اللَّهُ أَكْبَرُ

আল্ল-হু আকবার, আল্ল-হু আকবার

বলিতে শুনেছেন। রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ এ ব্যক্তি মুসলিম। সে পুনরায় বলিল,

 أَشْهَدُ أَنْ لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ أَشْهَدُ أَنْ لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ

আশহাদু আল লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ, আশহাদু আল লা-ইলা-হা ইল্লাল্ল-হ”

রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বললেনঃ তুমি জাহান্নাম থেকে মুক্তি পেলে। অতঃপর লোকটির দিকে দৃষ্টি নিক্ষেপ করে দেখলেন, সে মেষপালের রাখাল।

[ইসলামিক ফাউন্ডেশন- ৭৩১, ইসলামিক সেন্টার-৭৪৬]

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply