অপরের বস্তু থেকে সাময়িকভাবে উপকৃত হওয়া

অপরের বস্তু থেকে সাময়িকভাবে উপকৃত হওয়া

 অপরের বস্তু থেকে সাময়িকভাবে উপকৃত হওয়া >> বুলুগুল মারাম এর মুল সুচিপত্র দেখুন

অধ্যায়-১১ঃ অপরের বস্তু থেকে সাময়িকভাবে উপকৃত হওয়া

পরিচ্ছেদ ০১. অন্যের মালিকানাধীন সম্পদ ফিরিয়ে দেওয়া আবশ্যক
পরিচ্ছেদ ০২. আমানত ও ধার নেয়া বস্তু ফেরৎ দেয়া ওয়াজিব
পরিচ্ছেদ ০৩. আরিয়া”র যিম্মা নেওয়ার বিধান

পরিচ্ছেদ ০১. অন্যের মালিকানাধীন সম্পদ ফিরিয়ে দেওয়া আবশ্যক

৮৮৯ – সামুরাহ বিন্‌ জুনদুব [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, ধাররূপে গৃহীত বস্তু ফেরত না দেয়া পর্যন্ত গ্রহীতা [ক্ষয়-ক্ষতির] দায়ী থাকিবে । – হাকিম একে সহিহ বলেছেন ।{৯৫৫}

{৯৫৫} জঈফ, সানাদ ত্রুটিযুক্ত , তাওযিহুল আহকাম ৪/৫৭১ পৃঃ ,ইবনু হাজার আসকালানী ফাতহুল বারী ৫/২৮৫ গ্রন্থে বলেন, সামুরা থেকে হাসানের শ্রবণ বিষয়ের মতভেদ অতি আলোচিত । তিনি আত্‌-তালখীসুল হাবীর ৩/১০২২ গ্রন্থেও একই মন্তব্য করিয়াছেন । ইমাম শওকানী নাইলুল আওত্বার ৬/৪০ গ্রন্থেও অনুরূপ বলেছেন । শাইখ আলবানী জঈফ আবূ দাউদ ৪৭৪, ইরওইয়াউল গালীল ১৫১৬, যঈফুল জামে ৩৭৩৭ গ্রন্থে একে দুর্বল বলেছেন । আবদুর রহমান মুবারকপুরী তুহফাতুল আহওয়ারী ৪/১৫৯ গ্রন্থেও একই মন্তব্য করিয়াছেন । কিন্তু ইমাম যাহাবী আল মুহাযযিব ৭/৩৪১৫ গ্রন্থে এর সনদকে সালেহ বলেছেন, ইমাম সুয়ূত্বী আল জামেউস সগরী ৫৪৫৫ গ্রন্থে একে সহিহ বলেছেন । আহমাদ শাকের উমদাতুত তাফসীর ১/৩৪৪ গ্রন্থে এর বিশুদ্ধতার দিকেই ইঙ্গিত করিয়াছেন । হাদিসের তাহকিকঃ দুর্বল হাদিস

পরিচ্ছেদ ০২. আমানত ও ধার নেয়া বস্তু ফেরৎ দেয়া ওয়াজিব

৮৯০ – আবূ হুরাইরা [রাঃআঃ] হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেন, রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছেন, তোমার নিকটে আমানতরূপে রক্ষিত বস্তু আমানতদাতাকে ফেরত দাও আর তোমার সাথে খেয়ানত করে এমন লোকের সাথেও তুমি বিশ্বাসঘাতকতা করিবে না । -তিরমিজি একে হাসান বলেছেন আর হাকিম একে সহীহ্‌ বলেছেন । আর আবূ হাতিম রাযী একে মু্‌ন্‌কার [দুর্বল হাদিস] বলেছেন । হাদিস শাস্ত্রের একদল হাফিয হাদিসটিকে বর্ণনা করিয়াছেন, যা আরীয়ার অন্তর্ভুক্ত । {৯৫৬}

{৯৫৬} আবূ দাউদ ৩৫৩৫, তিরমিজি ১২৬৪, দারেমী ২৫৯৭ । হাদিসের তাহকিকঃ হাসান হাদিস

পরিচ্ছেদ ০৩. আরিয়া”র যিম্মা নেওয়ার বিধান

৮৯১ – ইয়া`লা বিন্‌ উমাইয়াহ হইতে বর্ণিতঃ

তিনি বলেছেন-রসূলুল্লাহ [সাঃআঃ] বলেছিলেন, যখন আমার দূতগণ [প্রেরিত লোকগণ] তোমার নিকটে আসবে তখন তুমি তাহাদেরকে ৩০টি বর্ম দিবে । আমি বললাম, হে আল্লাহর রসূল! ওগুলো কি ক্ষতিপূরণের দায়িত্বমুক্ত সাময়িক ঋণ বিশেষ না পরিশোধ্য ধার মাত্র? তিনি বলিলেন, পরিশোধীয় ধার স্বরূপ । -ইবনু হিব্বান সহীহ্‌ বলেছেন । {৯৫৭}

{৯৫৭} আবূ দাউদ ৩৫৬২, ৩৫৬৩, ৩৫৬৬, আহমাদ ২৭০৮৯ । নাসাঈ কুবরা [৩/৪০৯], ইবনু হিব্বান ১১৭৩ । বহু সূত্রের ভিত্তিতে হাদিসটি সহিহ, তাওযিহুল আহকাম ৪/৫৭৪ পৃঃ- হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৮৯২ – সাফওয়ান বিন্‌ উমাইয়াহ হইতে বর্ণিতঃ

নবী [সাঃআঃ] তাহাঁর নিকট থেকে হুনাইন যুদ্ধের সময় কিছু বর্ম ধার নিয়েছিলেন, ফলে সাফওয়ান তাঁকে বলিলেন, হে মুহাম্মদ! এটা জোরপূর্বক গ্রহণ করা হল? তিনি বলিলেন, না, ক্ষতিপূরণ দায়মুক্ত ফেরত দেয়ার শর্তে নেয়া হলো । -হাকিম একে সহীহ্‌ বলেছেন । {৯৫৮}

{৯৫৮} আবূ দাউদ ৩৫৬২, ৩৫৬৩, ৩৫৬৬, আহমাদ ২৭০৮৯ । হাদিসের তাহকিকঃ সহিহ হাদিস

৮৯৩ – বর্ণনাকারী হইতে বর্ণিতঃ

ইমাম হাকিম এর একটি সমর্থক দুর্বল হাদিস ইবনু `আব্বাস [রাঃআঃ] থেকে বর্ণনা করিয়াছেন । {৯৫৯}

{৯৫৯} হাকিম [২/৪৭] । শাইখ আলবানী ইরওয়াউল গালীল ৫/৩৪৪ গ্রন্থে এর সনদকে দুর্বল বলেছেন । কিন্তু সহিহ আবূ দাউদ ৩৫৬২ গ্রন্থে একে সহিহ বলেছেন । তিনি আত তালীকাত আর রযীয়্যাহ ২/৪৮৮ গ্রন্থে এর শাহেদ থাকার কথা বলেছেন । ইমাম শওকানীও নাইলুল আওত্বার ৬/৪১ গ্রন্থে শাহেদ থাকার কথা বলেছেন । হাদিসের তাহকিকঃ দুর্বল হাদিস

By বুলূগুল মারাম

এখানে কুরআন শরীফ, তাফসীর, প্রায় ৫০,০০০ হাদীস, প্রাচীন ফিকাহ কিতাব ও এর সুচিপত্র প্রচার করা হয়েছে। প্রশ্ন/পরামর্শ/ ভুল সংশোধন/বই ক্রয় করতে চাইলে আপনার পছন্দের লেখার নিচে মন্তব্য (Comments) করুন। তবে আমরা রাজনৈতিক পরিপন্থী কোন মন্তব্য/ লেখা প্রকাশ করি না। “আমার কথা পৌঁছিয়ে দাও, তা যদি এক আয়াতও হয়” -বুখারি ৩৪৬১। তাই লেখাগুলো ফেসবুক এ শেয়ার করুন, আমল করুন

Leave a Reply